১৫ সেপ্টেম্বর থেকে মেট্রো চালুর সম্ভাবনা, থাকছে টোকেন, স্টেশন বন্ধ কনটেনমেন্ট জোনে

নিউ নর্মালে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে কলকাতায় মেট্রোর চাকা গড়াতে পারে। পরিষেবা চালু হলেও, প্রতি দিন পরিস্থিতি বুঝে মেট্রোর সংখ্যা নিয়ন্ত্রিত হবে বলে জানা গিয়েছে।

মেট্রো সূত্রে খবর, টোকেন ইস্যু করা হবে না। নতুন করে স্মার্ট কার্ডও দেওয়া হবে না। অনলাইনে অ্যাপের মাধ্যমে রিচার্জ করা যাবে স্মার্টকার্ড। করোনার কথা মাথায় রেখে এমনই চিন্তাভাবনা রয়েছে মেট্রো কর্তাদের। স্টেশনে যাতে ভিড় না হয়, যাত্রীরা যাতে বিধি মেনে চলেন, সে কারণে রাজ্য প্রশাসনের সাহায্য চাইতে পারে মেট্রো। স্টেশনে আরপিএফ নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে। স্টেশনের বাইরে থাকে কলকাতা পুলিশ। নতুন করে মেট্রো চালু হলে, ভিড় নিয়ন্ত্রণই সব থেকে চিন্তার কারণ বলে মনে করছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

মেট্রো সূত্রে খবর, টোকেন ইস্যু করা হবে না। নতুন করে স্মার্ট কার্ডও দেওয়া হবে না। অনলাইনে অ্যাপের মাধ্যমে রিচার্জ করা যাবে স্মার্টকার্ড। করোনার কথা মাথায় রেখে এমনই চিন্তাভাবনা রয়েছে মেট্রো কর্তাদের। স্টেশনে যাতে ভিড় না হয়, যাত্রীরা যাতে বিধি মেনে চলেন, সে কারণে রাজ্য প্রশাসনের সাহায্য চাইতে পারে মেট্রো। স্টেশনে আরপিএফ নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে। স্টেশনের বাইরে থাকে কলকাতা পুলিশ। নতুন করে মেট্রো চালু হলে, ভিড় নিয়ন্ত্রণই সব থেকে চিন্তার কারণ বলে মনে করছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন: সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের ‘‌বিভ্রান্তিকর’‌ টুইট, আইনি পদক্ষেপ রাজ্য পুলিশের

এদিনই আনলক ৪-এ মেট্রো পরিষেবা চালু করার প্রসঙ্গে গাইডলাইনস দিল কেন্দ্রীয় সরকার। ধাপে ধাপে মেট্রো পরিষেবা শুরু করতে বলেছে কেন্দ্র। যে সব মেট্রোর একাধিক লাইন আছে তাদের ৭ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করে ১২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব লাইনে পরিষেবা চালু করে দিতে হবে। দেশের ১৫টি মেট্রো কর্পোরেশনের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর গাইডলাইনস প্রকাশিত হয়েছে।

সেখানে বলা হয়েছে কোনও স্টেশন যদি কন্টেনমেন্ট জোনে থাকে, তাহলে সেটা বন্ধই থাকবে। প্রাথমিক ভাবে অল্প কিছুক্ষণ পরিষেবা শুরু করলেও ১২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ পরিষেবা চালু করতে হবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক আনলক ৪-এর বিজ্ঞপ্তিতেই বলেছিল যে এবার মেট্রো পরিষেবা খুলে যাবে।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য স্টেশনে ও ট্রেনের মধ্যে দাগ কেটে রাখতে হবে যেখানে দাঁড়ানো যাবে। এছাড়াও মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হবে। কেউ না পরে এলে তাঁকে টাকা দিয়ে স্টেশন চত্বর থেকে মাস্ক কিনতে হবে যাত্রার জন্য। থার্মাল স্ক্রিনিং করে যাদের কোভিডের লক্ষণ নেই, তাদেরই ট্রেনে চড়তে দেওয়া হবে। যাদের কোভিডের লক্ষণ আছে, তাদের কোভিড সেন্টারে যেতে বলা হবে। তবে আরোগ্য সেতু অ্যাপ বাধ্যতামূলক করা হয়নি। প্রতিটি স্টেশনে স্যানিটাইজার দেওয়া হবে যাত্রীদের জন্য। কারণ এর মধ্যে মহারাষ্ট্র বলে দিয়েছে তারা অক্টোবর অবধি মেট্রো পরিষেবা চালু করবে না। দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি কোভিড কেস আছে ওই রাজ্যে।

আরও পড়ুন: আরও ১ মাস ৫০টাকায় ডায়ালিসিস! সুস্থ হতেই কাজে ফিরলেন ‘জনতার ডাক্তার’ ফুয়াদ হালিম