ব্ল্যাকমেল করে লাভ নেই, নাম না করে শুভেন্দুকে তোপ নেত্রীর, জেনে নিন মমতা- বার্তা…

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ভোটের মুখে ‘ব্ল্যাকমেল’ বা ‘দর কষাকষি’ করে লাভ হবে না। মেদিনীপুরের জনসভা থেকে বলে দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কারও নাম না করলেও শুভেন্দু অধিকারীকে লক্ষ্য করেই মমতার ওই কড়া বার্তা বলে মনে করছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। কারণ, তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তার পরেই নিজের দল সম্পর্কে মমতা বলেছেন, ‘‘অধিকারী-চ্যাটার্জি সকলকে নিয়েই সংসার।’’ বিজেপি-র বিরুদ্ধে ‘বিভাজনের রাজনীতি’ করার অভিযোগ করার সময়েও মমতা প্রয়োগ করেছেন ‘অধিকারী’ শব্দ। যা শুভেন্দু তথা কাঁথির অধিকারী পরিবারকে লক্ষ্য করা বলা বলেই তৃণমূল নেতাদের একাংশের অভিমত। প্রসঙ্গত, সোমবার মমতার মেদিনীপুরের সভায় অধিকারী পরিবারের কাউকে দেখা যায়নি।

আরও পড়ুন: তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের মামলায় মুকুল রায়কে চার্জশিট সিআইডি-র

বিধানসভা নির্বাচনের আগে মেদিনীপুরের সভা থেকে কী বার্তা দিলেন? একনজরে দেখে নিন তাঁর বক্তব্যের গুরুত্বপূর্ণ ১০ পয়েন্ট।

১. নতুন ধান হাতে কৃষকদের আন্দোলনে পাশে থাকার অঙ্গীকার। মঙ্গলবারের ভারত বন্‌ধকে সমর্থন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

২. মা-বোনেদের হাতা, খুন্তি নিয়ে রাস্তায় নামার আহ্বান।

৩. ব্লকে ব্লকে আন্দোলন। বহিরাগত কেউ আসছে কিনা নজর রাখার নির্দেশ।

৪. সিপিএম, কংগ্রেস এবং বিজেপিকে জোরাল আক্রমণ।

৫. বিজেপি বা বিজেপির কোন বন্ধু যদি মনে করে তৃণমূলকে দুর্বল করবে তাহলে বলব, আগুন নিয়ে খেলবেন না।

৬. মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ওরা বলছে জেল মে রহো ইয়া ঘরপে রহো। আমি জেল পছন্দ করব। কারণ তাহলে আজাদ হয়ে যাব।”

৭. কর্মীদের জন্য নতুন স্লোগান, “জনগণ আছে সঙ্গে তাই একুশে তৃণমূল থাকবে বঙ্গে।

৮. বিজেপি করা এখন ফ্যাশন হয়ে গিয়েছে। কারণ, বিজেপি চুরির টাকা রাখার ব্যাংক। ওরা দল ভাঙছে। সরকার ভাঙছে।

৯. বিজেপির টাকা আছে। গুন্ডা আছে। ক্ষমতা আছে। ভয় দেখায়। কিন্তু বিজেপির কাছে তৃণমূলের মতো কর্মী নেই। বিজেপির কাছে সোনার ধান নেই।

১০. তাজপুরে রাজ্য সরকার গভীর সমুদ্রবন্দর তৈরি করবে। ১৫ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। ২৫ হাজার মানুষের চাকরি হবে। পূর্ব এবং পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মানুষের প্রচুর কর্মসংস্থান হবে। এটা যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

প্রসঙ্গত, সোমবার মমতা যখন মেদিনীপুরে সভা করছেন, ততক্ষণে শুভেন্দু কলকাতায় রওনা দিয়েছেন। বিকেলের মধ্যেই তিনি শহরে পৌঁছে যান। কেন তিনি কলকাতায় এসেছেন, তা নিয়ে অবশ্য কেউ কোনও আলোকপাত করতে পারেননি। কিন্তু মমতা যে শুভেন্দুকে বার্তা দিয়েছেন, সে বিষয়ে নিশ্চিত তৃণমূলের প্রথমসারির নেতারা।

আরও পড়ুন: বহিরাগতদের দিয়ে বাংলা দখল করতে দেব না,আগুন নিয়ে খেলবেন না, মেদিনীপুরে হুঙ্কার মমতার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest