কলকাতা ফেরার পরই ডাকল দিল্লি, বিজেপিতেই আছি, বললেন মুকুল

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

সামনের বছর বিধানসভা ভোটে এ রাজ্যে পদ্ম-রাজ কায়েম করতে মুকুলের ‘ভোট পাটিগণিত’ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে মনে করছেন বঙ্গ বিজেপির একটা বড় অংশই। আবার একটা অংশ মনে করেন তাঁকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া ঠিক হবে না। মাঝে একবার রব উঠেছিল যে মুকুল রায় পেতে পারেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব।

পরে সব চুপচাপ। এমনকি দলের বৈঠক ছেড়ে যখন তিনি কলকাতায় তখন রাজনৈতিক জল্পনা আটকায় কে? সেইসব জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়ে আপাতত মুকুলের মানভঞ্জনের চেষ্টাই বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব চালাচ্ছেন বলে খবর।

আরও পড়ুন : ‘আইসিসি প্রধান হওয়ার আদর্শ ব্যক্তি সৌরভই’, এবার বললেন সাঙ্গাকারা

২৪ ঘণ্টা না কাটতেই তাঁকে ফের দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হল। সূত্রের খবর, আগামী শুক্রবার অমিত শাহ মুকুলের সঙ্গে সরাসরি কথা বলতে পারেন। অন্য দিকে, শনিবার কলকাতায় মুকুল দাবি করেছেন, তিনি বিজেপিতেই আছেন এবং থাকবেন। বাকি সব অপপ্রচার।

মুকুল জানিয়েছিলেন, চোখের জরুরি চিকিৎসার জন্য তাঁকে ফিরতে হচ্ছে। অথচ শনিবার তিনি নিজেই জানান, ডাক্তার দেখাবেন সোমবার। দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আবার দাবি করেছিলেন, ‘‘করোনা পরিস্থিতির সতর্কতা এবং শারীরিক কারণে মুকুলদা দূরত্ব রেখে চুপচাপ থাকছেন।’’

দিল্লির বাড়ি থেকে নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহের ছবি সরানোর প্রসঙ্গটি নিয়েও এদিন মুকুল রায় দাবি করেছেন, ‘এগুলো নির্বাচন কমিশন করেছে। আমি জানতাম না। এবার দেখছি।’

সূত্রের খবর, বুধবার বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা তথা রাজ্যের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়র বাড়িতে বৈঠকে বাংলায় বিজেপির নির্বাচনী সাফল্যের সম্ভাবনার যে ধরনের ছবি তুলে ধরা হয়েছিল, মুকুল তার সঙ্গে একমত হতে পারেননি।

আসনপ্রাপ্তির সম্ভাব্য সংখ্যা নিয়ে রাজ্য দলের কেন্দ্রীয় সহ পর্যবেক্ষক অরবিন্দ মেননের সঙ্গে মুকুলের কিছুটা মতভেদও হয়। তার পর বৃহস্পতিবারের বৈঠকে তিনি যোগ দেননি। শুক্রবার ফিরে আসেন কলকাতায়।

রাজনৈতিক মহলের ধারণা মুকুলকে নিয়ে চাপে রয়েছে কেন্দ্রীয় বিজেপি। দিলীপ যে তাঁকে জায়গা ছেড়ে দেবে না সেটা স্বাভাবিক। অন্যদিকে ভোট ক্যালকুলেশন মুকুল যে দিলীদের বলে বলে গোল দিতে পারেন সেটাও বিজেপি জানে। মুকুল তৃণমূলের ঘর ভাঙার পক্ষে। তিনি রাজনীতিতে জাত-পাত, ধর্ম চান না। তার কাজ হল তৃণমূলের ঘর থেকে ভালো নেতা তুলে নাও। তিনি তৃণমূলের ঘর থেকে সংখ্যালঘু নেতা তুলে আনতে চাইছেন। সেটা আরএসএস এবং দিলীপের নাকি পছন্দ নয়। মুকুলকে দিল্লি ডেকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বোঝালো সামনে বিধানসভার জন্য বিজেপিতে ‘মুহাজির’ এই নেতাকে তাদের এখনও দরকার।

আরও পড়ুন : রাম মন্দিরের ভূমি পূজনের দিন থেকে হনুমান চালিশা জপলে নির্মূল হবে করোনা,দাবি সেই প্রজ্ঞার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest