মোদির বক্তব্যর আগে মঞ্চ মাতালেন ডোনা, সৌরভের সঙ্গে বিজেপি শীর্ষনেতৃত্বের ‘সুসম্পর্ক’ নিয়ে ফের চর্চা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বাংলায় বিজেপি-র উদ্যোগে যে দুর্গাপুজো হচ্ছে, দিল্লি থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে ষষ্ঠীর দুপুরে সেই পুজোর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেই বক্তৃতায় ঠারেঠোরে একুশের ভোটের বার্তা দিয়ে দিলেন তিনি। বিজেপি নেতাকর্মী তথা বাংলার সাধারণ জনতার উদ্দেশে মোদী বলেন, “মহিষাসুরকে বধ করার জন্য মা দুর্গার একার শক্তিই যথেষ্ট ছিল। কিন্তু তাও তিনি সমগ্র দেবকূলকে সংগঠিত করেছিলেন। দুর্গতি নাশে সকলে সংগঠিত হোন।”

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ নির্ধারিত ছিল বেলা ১২টায়। কিন্তু সল্টলেকে পূর্বাঞ্চলীয় সংস্কৃতি কেন্দ্রে (ইজেডসিসি) বিজেপি আয়োজিত দুর্গোৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়ে যায় সকাল ১০টা থেকেই। রাজ্য বিজেপি-র প্রায় গোটা নেতৃত্ব সকাল থেকে হাজির ছিলেন ইজেডসিসি-তে। ছিলেন শিবপ্রকাশ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ মেননদের মতো কেন্দ্রীয় নেতারাও।

আধ্যাত্মিক চর্চা, ঢাকের বোলে বিশেষ নাচ, বাংলা গানের আসর-সহ নানা অনুষ্ঠানে মঞ্চ ঠাসা ছিল ১০টা থেকেই। তবে বিশেষ নজর কেড়েছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের পত্নী ডোনা ও তাঁর দলের পরিবেশনায় ‘মহিষাসুরমর্দিনী’। সৌরভের সঙ্গে বিজেপি শীর্ষনেতৃত্বের ‘সুসম্পর্ক’ নিয়ে রাজ্যের রাজনৈতিক শিবিরে বহুদিন ধরেই চর্চা চলছে।

আরও পড়ুন: পাঠ করলেন ‘বাংলার মাটি, বাংলার জল’, নাম নিলেন, উত্তম- সুচিত্রার! বাঙালি আবেগ উসকে শারদীয়া বার্তা মোদীর

সৌরভকে সক্রিয় রাজনীতির ময়দানে অদূর ভবিষ্যতে দেখা যেতে পারে কি না, সে বিষয়েও আগ্রহ প্রবল। রাজনীতিতে গেলেও সৌরভ শীর্ষেই পৌঁছবেন— এই মন্তব্য করে ডোনা একবার সেই ঔৎসুক্য বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। বিজেপি-র দুর্গোৎসবের মঞ্চে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের আগে সেই ডোনার অনুষ্ঠানকে তাই অনেক রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ বলে মনে করছেন।

যদিও গোটা বিষয়টি নিয়ে নীরব মহারাজ। এই করোনা উদ্বেগের মাঝে বাড়িতে বসেই পুজো উপভোগ করার বার্তা দিচ্ছেন বাংলার মহারাজ তথা বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি।

বেহালায় সৌরভ গাঙ্গুলির বাড়ির পাশেই হয় বড়িশা প্লেয়ার্স কর্নারের পুজো। বাড়ির সদস্যরা এই পুজোর সঙ্গে ওতোপ্রতোভাবে জড়িয়ে। মহারাজের পুজো নামেই পরিচিত বড়িশা প্লেয়ার্স কর্নারের পুজো। চতুর্থীতে সেই পুজোর উদ্বোধন করেন সৌরভ নিজেই। সেই সঙ্গে সকলকে পুজোর শুভেচ্ছা জানিয়ে মহারাজ বলেন,  ” ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। বাড়িতে বসে পুজো উপভোগ করুন। কোথাও বেরোবেন না। কিছু হয়ে গেলে আর কিছু করার থাকবে না। দুর্গাপুজো বাঙালির শ্রেষ্ঠ উত্সব, প্রতিবছরই হয়। আমরা প্রতিবছরই খুব আনন্দ করি। এবছর একটু আলাদা ,তাই সাবধানে থাকবেন। কারণ মা দূর্গা আবার আসবেন পরের বছর। কোভিডও চলে যাবে এবছরের পর। তাই সাবধানে থাকবেন।”

আরও পড়ুন: এটিএমে পাঁচ হাজার টাকার বেশি তুললে বাড়তি চার্জ! আসতে চলেছে নয়া নিয়ম

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest