মস্তানের মতো আচরণ করছেন রাজ্যপাল, পার্থের মন্তব্যে মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাইল রাজভবন

কলকাতা: বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে বেনজির সংঘাত রাজ্য সরকার ও রাজ্যপালের।সোমবার রাজ্য সরকারের পরামর্শ অগ্রাহ্য করে যাঁকে সহ উপাচার্য নিয়োগ করেছিলেন রাজ্যপাল, আজ তাঁকে সরিয়ে দিল রাজ্য সরকার। নিয়োগ করা হল নতুন উপাচার্য। 

এদিন এক সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এমনকী, ‘রাজ্যপাল মস্তানসুলভ আচরণ করছেন’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

আরও পড়ুন: তিন দিন ট্রেনে জোটেনি খাবার- জল, মালদায় ট্রেন থেকে নেমে চিরঘুমে কিশোর

শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কঠোর সমালোচনা করে বিবৃতি দিল রাজভবন।শিক্ষামন্ত্রী যা বলেছেন রাজ্যপাল সম্পর্কে, তার নিন্দা করেই মঙ্গলবার বিবৃতিটি প্রকাশ করেছে রাজভবন।সংবিধান এবং গণতন্ত্র সম্পর্কে পার্থবাবু কিছুই জানেন না বলেও মন্তব্য করা হয়েছে সেখানে। মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও চাওয়া হয়েছে রাজভবনের তরফে।

শিক্ষামন্ত্রী যা বলেছেন রাজ্যপাল সম্পর্কে, তা ‘অত্যন্ত দুঃখজনক’ এবং একজন মন্ত্রীর মুখে এ ধরনের কথা মানায় না বলে লেখা হয়েছে রাজভবনের বিবৃতিতে। মন্ত্রী হিসেবে পার্থ চট্টোপাধ্যায় যে শপথ নিয়েছেন, সেই শপথের জন্যও এটা অত্যন্ত অবমাননাকর বলে লেখা হয়েছে সেখানে।

রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে বেতন রাজ্য সরকার দেয়, এটা রাজ্যপাল ভুলে যাচ্ছেন বলে যে মন্তব্য শিক্ষামন্ত্রী করেছিলেন, সে প্রসঙ্গও এ দিন টেনে আনা হয়েছে রাজভবনের বিবৃতিতে। বেতন দেয় বলেই বিশ্ববিদ্যালয়কে সরকার নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না বলে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ওই মন্তব্য বুঝিয়ে দিচ্ছে যে, সংবিধান এবং গণতন্ত্র সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না— এমনও লেখা হয়েছে এ দিন রাজভবনের তরফে।

বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই রাজ্য ও রাজ্যপালের মধ্যে তুমুল সংঘত চলছে। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের প্রধান গৌতম চন্দ্রকে সহ উপাচার্য নিয়োগ করেন রাজ্যপাল। আজ তাঁকে সরিয়ে কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের প্রধান আশিসকুমার পানিগ্রাহীকে সহ উপাচার্য নিয়োগ করে রাজ্য সরকার। 

আরও পড়ুন: ৮ জুন বাংলার জন্য ‘ভার্চুয়াল’ সভা অমিত শাহের, জেনে নিন কি কী কী থাকতে পারে ভাষণে

Gmail