জগদ্দলে ফের শুটআউট! ১৬ বছরের কিশোরকে মাথায় গুলি করে খুন

ফের জগদ্দলে প্রকাশ্যে শ্যুটআউট। রাস্তার মাঝে কিশোরকে দাঁড় করিয়ে মাথায় গুলি। মৃতের নাম আবদুল ওয়াকার(১৬)। জগদ্দলে ৫ নম্বর গলিতে থানা থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে ঘটনাটি ঘটে।

এলাকার বাসিন্দারা জানান, রাস্তায় মহরমের ডঙ্কা বাজাচ্ছিল ছোটোরা। তখন  বাইকে যাচ্ছিল  এলাকার কুখ্যাত পঙ্কজ ও সাদ্দামের দল। সাদ্দামরা রাস্তা দিয়ে সরে যেতে বলে। অভিযোগ, ওই কিশোর পাশ না দিতেই বাইক থেকে নেমে তারা দু’রাউন্ড গুলি চালায়। প্রথমে  একটি গুলি শূন্যে চালায়, পরের গুলিটি মাথায় লাগে আব্দুল ওয়াকারের। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে আব্দুল।

আরও পড়ুন: পৌষ মেলার মাঠে চলে পতিতাবৃত্তি’, বিজেপির ‘ফ্যাশন নেত্রী’ অগ্নিমিত্রার মন্তব্যে বিতর্ক

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, বছর ষোলোর ওই কিশোর খুবই শান্ত স্বভাবের। কারও সঙ্গে গণ্ডগোলেও জড়ায় না সে। শনিবার ভিড়ে ঠাসা রাস্তাতেই যে এমন কাণ্ড ঘটে যাবে তা ভাবতে পারেননি কেউই। ভাটপাড়া স্টেট জেনারেলে নিয়ে গিয়ে শেষ চেষ্টা করা হয় তবে লাভ হয়নি। কিশোরের মৃত্যু মানতে পারছেন না তার পরিজন এবং প্রতিবেশীরা। স্থানীয়দের দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত পঙ্কজ ও সাদ্দামের দল এলাকার কুখ্যাত দুষ্কৃতী বলেই পরিচিত। তারা নানা অসামাজিক কাজকর্ম করে সারাক্ষণ। কেউ তাদের বিরোধিতা করলেই পরিণামে হুমকি, মারধর এমনকী প্রাণহানিও হতে পারে। তাই ভয়ে কেউই তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলে না। তবে কিশোর হয়তো তাদের না চেনার ফলে এমন কাণ্ড ঘটে গেল বলেই মনে করছেন তাঁরা।

থানা থেকে প্রায় ঢিল ছোঁড়া দূরত্বের এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই এলাকার নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। পুলিশ কিশোরের দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। শুধুমাত্র রাস্তা আটকানোর কারণে খুন নাকি এই ঘটনার নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা খতিয়ে দেখছেন পুলিশ আধিকারিকরা। যাতে নতুন করে আর কোনও অশান্তির পরিবেশ তৈরি না হয় তাই পুলিশি নজরদারি চালানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ঘোষণার পরই বাতিল জেলা যুব মোর্চা সভাপতিদের নাম, শুরুতেই ব্যাকফুটে সাংসদ সৌমিত্র খাঁ