‘ট্রাম্প গেল, এবার মোদিও ফুটে যাবে’,মন্তব্য ‘দিদির কেষ্টর’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ময়দানে আগেই নেমে পড়েছে তৃণমূল। অমিত শাহের সফরের পর অনুব্রতর মত হার্ডহিটাররা আরও একবার গা ঝাড়া দিলেন। বিজেপিকে বুঝিয়ে দিলেন ‘ইমপোর্টেট’ নেতা এনে বিশেষ কাজ হবে না। অমিত শাহকে (Amit Shah) খোঁচা দিয়ে তিনি বলেন, “ওর সঙ্গে যে বন্ধুত্ব করবে সে শেষ হবে। ট্রাম্পের সঙ্গে খুব বন্ধুত্ব হয়েছিল। ট্রাম্প ফুটে গেল। এবার মোদি ফুটে যাবে।”

শনিবার মঙ্গলকোটের কাশেমনগরে এন এ জে হাইস্কুলে তৃণমূল কংগ্রেসের বুথভিত্তিক কর্মী বৈঠক করেন অনুব্রত মণ্ডল। এদিন পশ্চিম মঙ্গলকোটের লাখুড়িয়া, চাণক, পালিগ্রাম ও গতিষ্ঠা এই চারটি অঞ্চল মিলে মোট ৫৯ টি বুথের কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন অনুব্রত। প্রতিটি বুথের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলে তিনি খোঁজখবর নেন।

আরও পড়ুন : দেখে নিন স্বামী বিবেকানন্দ-এর এমন কিছু বাণী, যা আপনাকে মানসিক শক্তি দেবে

বীরভূমের জেলা তৃণমূল সভাপতি বলেন, “দিল্লি থেকে এলেন দক্ষিণেশ্বর গেলেন। কেউ দার্জিলিং গেলেন, আর বাংলার মানুষ গুজরাটের লোকটাকে মেনে নেবে? একদিন এসেই সব ব্যপারটা বুঝে যাবে, অত সোজা নাকি? আমরা ওসব শুনতে চাই না। আমরা বাংলার পাওনা ৫৬ হাজার কোটি টাকা চাই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলছেন আমার রাজ্যের পাওনা টাকা ফেরত দাও। আমরা ভিক্ষে চাই না। ওটা আমাদের হকের টাকা। আমাদের দিতে হবে।”

বিহারে সত্যিই যদি এনডিএ ধাক্কা খায়, তাহলে বাংলায় যে স্বপ্ন বিজেপির কিছু নেতা দেখছেন, তাতে বড় ধাক্কা খাবে। কেন্দ্রীয় বিজেপির বর্তমান সমস্যা হল তারা নিজেদের টিম থেকে ক্যাপ্টেন ঠিক করতে পারছেন না। সে কারণে বারবার সৌরভের দিকে তাকাচ্ছেন অমিত শাহ। এমনিতেই পদ্মে বাড়ছে ঘাসফুল ছেড়ে আসা নেতার সংখ্যা। ফলে চাপ বাড়ছে দলের ভিতরে।

আরও পড়ুন : পকেটসই দামে বাজারে এল LG-র ৩টি চোখ ধাঁধাঁনো স্মার্টফোন! জেনে নিন খুঁটিনাটি…

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest