বিধাননগরে পুলিসের সামনেই তুমুল সংঘর্ষে জড়াল তৃণমূল – বিজেপি

পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে ময়দানে নামে পুলিশ-কেন্দ্রীয় বাহিনী। দীর্ঘক্ষণ পর খানিকটা শান্ত হয় এলাকা।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

পঞ্চম দফার ভোটে (West Bengal Assembly Elections) তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল সল্টলেকের শান্তিনগর। রীতিমতো ইটবৃষ্টিতে জড়িয়ে পড়ে দু’পক্ষ। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে ময়দানে নামে পুলিশ-কেন্দ্রীয় বাহিনী। দীর্ঘক্ষণ পর খানিকটা শান্ত হয় এলাকা।

বিজেপির অভিযোগ, শান্তিনগরের বিভিন্ন এলাকায় কয়েকদিন ধরেই হুমকি দিচ্ছিল তৃণমূল। ভোট দিতে গেলে গুলি করে মেরে দেওয়া হবে বলে শাসানো চলছিল। শনিবার সকালে বিজেপি কর্মীরা বুথ অফিস তৈরি করলে সেখানেও তৃণমূলের গুন্ডারা হুমকি দিতে থাকে বলে অভিযোগ। অকথ্য গালিগালাজের পাশাপাশি ২ তারিখের পর দেখে নেওয়া হবে বলে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি (BJP) আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা চালিয়েছে তাদের উপর।

আরও পড়ুন: শুভেন্দুর জবাবে সন্তুষ্ট নয় কমিশন, নিষেধাজ্ঞা না চাপিয়ে করা হল সতর্ক

এর জেরে দুপক্ষের মধ্যে বচসা বেঁধে যায়।  অশান্তির খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যান বিধাননগরের বিজেপি প্রার্থী সব্যসাচী দত্ত ও তৃণমূল প্রার্থী সুজিত বসু। সব্যসাচীর অভিযোগ, বিধাননগর দক্ষিণ থানার এসআইয়ের নেতৃত্বে পরিকল্পনা মাফিকভাবেই মারধর করা হয়েছে। পালটা দিয়েছেন সুজিতও। সংবাদমাধ্যমের সামনে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তোলেন তিনি। এর মধ্যে প্রার্থীর উপস্থিতিতেই দুপক্ষ একে অপরের ওপর হামলা পড়ে। পরস্পরকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকে তারা। তাতে আহত হন দুপক্ষেরই কয়েকজন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় কমিশনের কুইক রেসপন্স টিম। তাদের সামনেই চলে হাতাহাতি। সব্যসাচীবাবুর অভিযোগ, বিধাননগরের এক পুলিশ আধিকারিকের নেতৃত্বে বিভিন্ন জায়গায় সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে তৃণমূল। অবিলম্বে পদক্ষেপ করা উচিত কমিশনের।

আরও পড়ুন: বৈশাখী রোড শোয়ে ‘বাংলার দুই মেয়ে’, মমতার পাশে হাঁটলেন জয়া, ধরলেন হুইলচেয়ার!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest