কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে টুইটারের সঙ্গে সংঘাত, বিকল্প ‘চাইনিজ’ অ্যাপ Koo-এর প্রচার বিজেপি নেতা- মন্ত্রীদের!

আচমকা জনপ্রিয়তা পাওয়ায় কিছু কিছু যান্ত্রিক ত্রুটির সম্মুখীন হচ্ছে এই দেশীয় অ্যাপ। কতটা নিরাপদ এই অ্যাপ, সেটা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

সম্প্রতি কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে কেন্দ্রের বিরাটভাজন হয়েছে টুইটার। আর তাই এবার তাকে টক্কর দিতে ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি হচ্ছে মাইক্রোব্লগিং সাইট ‘কু’। আত্মনির্ভর ভারতের লক্ষ্যে টুইটারের বিকল্প হিসেবে ‘কু’-র প্রচারে উদ্যোগ নিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান, তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ, রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের মতো অনেকেই এই প্ল্যাটফর্মের ফলোয়ার। সম্প্রতি এই ‘কু’ অ্যাপের জনপ্রিয়তাও বাড়ছে।

২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে ‘কু’ অ্যাপ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছিল। গতবছর মার্চ মাসে এই অ্যাপ লঞ্চ হয়েছে। অ্যাপটি তৈরি করেছেন, ‘ট্যাক্সি ফর সিয়োর’-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা আপরামেয় রাধাকৃষ্ণ ও ‘রেড বাস’,’গুড বক্স’-র সহ প্রতিষ্ঠাতা মায়াঙ্ক বিদাওয়াতকা। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তথ্যপ্রযুক্তি দপ্তর, মাই গভ, ডিজিটাল ইন্ডিয়া, ইন্ডিয়া পোস্ট ‘কু’ অ্যাপে নিজেদের অ্যাকাউন্ট খুলেছে।

আরও পড়ুন: হোয়াটসঅ্যাপের জনপ্রিয় ফিচার হাজির Signal-এ, সুবিধা হবে ইউজারদের

কারা তৈরি করেছেন এই ‘কু’ অ্যাপ?

আইওএস এবং গুগল প্লে স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে এই অ্যাপ। নিজের মতামত সকলের সঙ্গে শেয়ার করার জন্য ‘কু’-এর প্ল্যাটফর্মে পোস্ট করতে পারবেন আপনি। এছাড়াও অন্যান্য ইউজারদের ফলো করতে পারবেন। ৪০০-এর ক্যারেক্টারের মধ্যে পোস্ট করা সম্ভব এই প্ল্যাটফর্মে। মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে ‘কু’ অ্যাপে সাইন ইন করতে পারবেন ইউজাররা। নিজেদের ‘কু’ প্রোফাইলের সঙ্গে ফেসবুক, লিঙ্কডইন, ইউটিউব এবং টুইটারের ফিড যুক্ত করতে পারবেন ইউজাররা।

‘কু’ অ্যাপের একজন ইউজার নিজের ওয়ালে অডিয়ো এবং ভিডিয়ো দুটোই পোস্ট করতে পারবেন। এছাড়া একজন ‘কু’ ইউজার টুইটারের মতো হ্যাশট্যাগও ব্যবহার করতে পারবেন। নিজের কোনও পোস্টে চাইলে অন্য কাউকে ট্যাগ করার অপশনও পাবেন ইউজাররা। @- এই চিহ্ন দিয়েই কাউকে ট্যাগ করা সম্ভব। ফটো শেয়ারের পাশাপাশি পোল তৈরির অবশনও থাকবে।

এই অ্যাপের বিশেষত্ব কী?

‘কু’ অ্যাপের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল এই প্ল্যাটফর্মে ইউজাররা নিজেদের পছন্দের ভাষায় পোস্ট করতে পারেন। তবে একই সময়ে একজন ইউজার একটিই ভাষা ব্যবহার করতে পারবেন। অ্যাপে সাইন ইন বা লগ ইন করার পর পছন্দমতো ভারতীয় ভাষা বেছে নেওয়ার সুযোগ পাবেন। সমস্ত আঞ্চলিক ভাষা এই অ্যাপে পাওয়া যাবে।

টুইটার পক্ষপাতদুষ্ট এই অভিযোগ করে অনেক দক্ষিণপন্থী বলা ভালো বিজেপি মতাদর্শে বিশ্বাসী মানুষ ইতিমধ্যেই কু-তে অ্যাকাউন্ট খুলেছেন।জানা গিয়েছে, কু অ্যাপে যে চাইনিজ ইনভেস্টরের অল্প শেয়ার আছে, এই নিয়ে ইতিমধ্যেই বিতর্ক শুরু হয়েছে।

অন্যদিকে, আচমকা জনপ্রিয়তা পাওয়ায় কিছু কিছু যান্ত্রিক ত্রুটির সম্মুখীন হচ্ছে এই দেশীয় অ্যাপ। অনেকে বিভিন্ন ফিচার ঠিক করে চলছে না বলেও নালিশ করছেন। কতটা নিরাপদ এই অ্যাপ, সেটা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। জানা গিয়েছে, এই মাধ্যমে লিক হয়ে যাচ্ছে ইমেইল আইডি ও বার্থ ডেট। তবে কু অ্যাপের তরফ থেকে আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে যে তারা যতটা দ্রুত সম্ভব, সব সমস্যার নিরসন করে ফেলবে।

আরও পড়ুন: লঞ্চ হয়েছে রিয়েলমি এক্স সিরিজের দু’টি নতুন মডেল, জেনে নিন অসাধারণ ফিচার