চাপের মুখে পিছু হটল whatsapp, প্রাইভেসি পলিসির নতুন নিয়ম লাগু হচ্ছে না এখনই

হোয়াটসঅ্যাপের (whatsapp) নতুন প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে সম্প্রতি বিতর্ক দানা বেঁধেছিল। এমনকী দিল্লি হাইকোর্টে দায়ের হয়েছিল জনস্বার্থ মামলাও। কয়েক কোটি কোটি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারীরা এই অ্যাপ ছেড়ে টেলিগ্রামের মত অ্যাপগুলি ব্যবহার করা শুরু করেছিল। এই সব পরিস্থিতি বিচার করে পিছু হঠতে বাধ্য হল ফেসবুকের মালিকানাধীন এই সংস্থা৷ হোয়াটসঅ্যাপের তরফে জানান হয়েছে এখনই লাগু হবে না এই নিয়ম। আপাতত তিন মাস পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রথমে বলা হয়েছে ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নতুন টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন না মানলে ডিলিট হতে পারে হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট। তবে সেই সময়সীমা বাড়িয়ে ১৫ মে করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে বাকি পরিবর্তনের ব্যাপারে বিস্তারিত বিবরণ দেবে সংস্থা।

হোয়টসঅ্যাপের প্রাইভেসি পলিসিতে বদল আসছে এই খবরের পাশাপাশি শোনা গিয়েছিল যে ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য যেমন ফোন নম্বর পর্যন্ত শেয়ার হয়ে যাবে ফেসবুকে। এরপরই শুরু হয় সমালোচনা। যদিও হোয়াটসঅ্যাপের তরফে ইতিমধ্যেই একবার বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে যে এ ধরণের কিছুই ঘটবে না। কিন্তু তার পরই বিতর্ক থামেনি।

আরও পড়ুন: অ্যাবাকাস থেকে সুপার কম্পিউটার…জেনে নিন কম্পিউটারের পাঁচ কাহন

তাই এবার আপডেটেড প্রাইভেসি পলিসি অ্যাকসেপ্ট করার মেয়াদ বাড়িয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। সংস্থার তরফে বলা হয়েছে, “আমরা অনেক মানুষের বক্তব্য শুনে বুঝতে পেরেছি প্রাইভেসি পলিসির আপডেট নিয়ে প্রচুর বিভ্রান্তি রয়েছে। অনেক ভুল তথ্যও রয়েছে ইউজারদের মনে। আমরা সবাইকেই ঠিক ভাবে সবটা বুঝতে সাহায্য করব।”

হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের তরফে টুইট করে জানানো হয়েছে এবার ইউজাররা নতুন প্রাইভেসি পলিসি, তার আপডেট, টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন ভাল ভাবে জেনে বুঝে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট সময় পাবেন। সেই সঙ্গে তারা এও জানিয়েছে যে কোনও ইউজারের অ্যাকাউন্ট ডিলিট করা হবে না। বর্তমানেও এমন কাজ হয়নি বা হচ্ছে না এবং ভবিষ্যতেও হবে না। ইউজারদের সমস্ত রকম বিভ্রান্তি এবং কৌতূহলের জবাব দেওয়ার জন্য হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ নিয়মিত কাজ জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: কীভাবে ডিলিট করবেন হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট? কীভাবে মুছবেন ব্যাকআপ মেসেজ