ওয়াশিংটনে গান্ধী-মূর্তিতে গান্ধীর মূর্তিতে স্প্রে-পেন্টিং, অভিযুক্ত ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদীরা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ওয়াশিংটন: বর্ণবৈষ্যম্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য গোটা পৃথিবী তাঁকে একডাকে চেনে। সেই মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিতে ভাঙচুর চালানোর চেষ্টা হল। শুধু তাই নয়, তাতে কালি লাগিয়ে নোংরা করার অভিযোগ উঠল জর্জ ফ্লয়েড (George Floyd) হত্যার বিরুদ্ধে গর্জে ওঠা বিক্ষোভকারীদের নামে।

ঘটনাটি ঘটেছে আমেরিকার ওয়াশিংটন ডিসির সামনে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের সামনে।ওয়াশিংটনে ভারতীয় দূতাবাসের বাইরের মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিতে স্প্রে-পেন্টিং করে আঁকা হল গ্র্যাফিটি। সেই ঘটনায় জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদীরা জড়িত বলে অভিযোগ। পরে পুলিশ মূর্তিটি ঢেকে দিয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মধ্যেই রাশিয়ায় নয়া ত্রাস রক্তচোষা কীট!

#BlackLivesMatters-এর প্রতিবাদীরা গান্ধীর মূর্তিতে প্রথমে স্প্রে-পেন্টিং করে গ্র্যাফিটি আঁকেন।বৃহস্পতিবার সকালে সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের তরফে টুইট করা হয়, ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের সামনে থাকা মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিটি নোংরা করার চেষ্টা হয়েছে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পরে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মূর্তিটিকে কাপড় দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। শুরু হয়েছে তদন্ত।

প্রশাসনের তরফে প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছে, ২ থেকে ৩ জুনের মধ্যেই ঘটনাটি ঘটেছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। মূর্তিটি পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি অভিযুক্তদের পাকড়াও করার চেষ্টা চলছে।

এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কেন জাস্টার্স। একটি টুইটবার্তায় তিনি বলেন, ‘ওয়াশিংটন ডিসিতে গান্ধী মূর্তির অবমাননা দেখে অত্যন্ত দুঃখিত। আন্তরিকভাবে ক্ষমা চাইছি। পাশাপাশি জর্জ ফ্লয়েডের বীভৎস মৃত্যু এবং হিংসা ও ভাঙচুরে হতবাক হয়েছি। আমরা যে কোনও ধরনের কুসংস্কার এবং বৈষম্যের বিরুদ্ধে উঠে দাঁড়িয়েছি। আমরা ঘুরে দাঁড়াব এবং আরও ভালো হব।

এই বিষয়ের তীব্র নিন্দা করে ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে ভারতের পক্ষ থেকে। আন্তরিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করার পাশাপাশি এই বিষয়ে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করা হয়েছে আমেরিকার স্বরাষ্ট্র দপ্তরের তরফে। পাশাপাশি ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কেন জাস্টার বিবৃতি দিয়ে জানান, ‘ওয়াশিংটনে গান্ধী মূর্তির উপর হামলার ঘটনায় আমরা মর্মাহত। এই বিষয়ে আন্তরিকভাবে দুঃখপ্রকাশ করছি।’

আরও পড়ুন: এবার কি তবে সত্যিই দেশে ফেরানো হচ্ছে বিজয় মালিয়াকে ? তৎপর সিবিআই

Gmail
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest