Mukul Roy made chairman of Public accounts Committee in West Bengal Assembly

Mukul Roy: পিএসি-র চেয়ারম্যান হলেন মুকুল রায়ই

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

প্রত্যাশিত ভাবেই রাজ্য বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটি (পিএসি)-র চেয়ারম্যান হলেন মুকুল রায়। শুক্রবার বিধানসভার অধিবেশন শেষে তাঁর নাম ঘোষণা করেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু মুকুলের নাম ঘোষণা করতেই প্রতিবাদে বিধানসভা থেকে বেরিয়ে যান বিরোধী শিবিরের বিধায়করা। তার পর সাংবাদিক বৈঠক করে ক্ষোভ উগরে দেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর অভিযোগ, সাধারণত বিরোধী দল থেকেই পিএসই-র চেয়ারম্যান নিযুক্ত করা হয়। কিন্তু ক্ষমতার জোরে সেই রীতি ভঙ্গ করেছে তৃণমূল। বিজেপি-র কোনও বিধায়ক মুকুল রায়ের নাম প্রস্তাব করেননি। যদিও গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা সদস্য, এক জন নির্দল প্রার্থী মুকুলের নাম সুপারিশ করেন। এগরার তৃণমূল বিধায়কও মুকুলের নাম প্রস্তাব করেন।

ভোটপর্ব মিটতেই, গত ১১ জুন বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফিরে আসেন সপুত্র মুকুল। তখনই তাঁকে বড় দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে বলে গুঞ্জন শুরু হয়েছিল জোড়াফুল শিবিরই। তার পরই গত ২৩ জুন পিএসই সদস্যপদের জন্য মনোনয়ন জমা দেন মুকুল। তার পরেই শুক্রবার স্পিকার আনুষ্ঠানিক ভাবে তাঁর নিযুক্তির ঘোষণা করেন। স্পিকার জানান, রাজনীতিতে দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞতা মুকুলের। সংসদেও অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। সব কিছু বিবেচনা করে তাই তাঁকেই পিএসই-র চেয়ারম্যান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নাম ঘোষণা হওয়ার পরই ক্ষোভে ফেটে পড়েছে বিজেপি। বিষয়টি নিয়ে যে বিজেপি সংঘাতের পথে হাঁটবে তা আগে থেকেই স্পষ্ট করা হয়েছিল। এ বার সেই মতো শাসকদলকে সরাসরি আক্রমণে শান দিয়েছেন দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। পিএসি চেয়ারম্যান হিসেবে মুকুলের নাম ঘোষণা হওয়ার পরই সাংবাদিক বৈঠক করে বিরোধী দলনেতা বলেন, “ক্ষমতার বলে পরিষদীয় রীতি-নীতি ভাঙলেন অধ্যক্ষ।” তিনি আরও জানান, “আমরা বিধানসভার কোনও কমিটিও নিচ্ছি না। তৃণমূল যত পারে ক্ষমতা ভোগ করে নিক। কারণ এটাই ওদের শেষ টার্ম।”

আরও পড়ুন: বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতির পদ ছাড়লেন সৌমিত্র খাঁ, ফের দলবদলের জল্পনা

শুভেন্দুর সাফ কথা, “সরকারের যেমন খরচ করার অধিকার রয়েছে, তেমনই বিরোধীদেরও অধিকার রয়েছে সেই খরচের খতিয়ান খতিয়ে দেখার। সেই মতো রাজ্যের খরচ খতিয়ে দেখে বিরোধীরা। কিন্তু এই প্রথম কোনও গণতন্ত্রে বিরোধীদের এমনটা হচ্ছে, যেখানে বিরোধীদের পক্ষ থেকে পিএসির চেয়ারম্যান করা হচ্ছে না।” এর পাশাপাশি পিএসি কমিটির ২০ সদস্যের মধ্যে বিজেপির ৭ সদস্য রয়েছে বলে শুক্রবার উল্লেখ করেছেন অধ্যক্ষ। কিন্তু শুভেন্দু সাফ জানিয়ে দেন, বিজেপির পক্ষ থেকে ৬ সদস্য়ের মনোনয়ন জমা দেওয়া হয়েছিল। সপ্তম ব্যক্তি অর্থাৎ মুকুল রায়ের মনোনয়ন বিজেপির পক্ষ থেকে করা হয়নি।

বিজেপি চেয়েছিল, পিএসি-র কমিটির চেয়ারম্যান পদে বালুরঘাটের বিধায়ক তথা বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অশোক লাহিড়ীকে আনতে। সেই মতো তাঁর নামের মনোনয়ন জমা দিলেও সেটা প্রত্যাখ্যান করা হয় বলে এ দিন দাবি করেছেন শুভেন্দু। এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি নিজেই বলেন, “এই সরকার চায়, খরচ আমরা করব, হিসাবও আমরাই দেখব।” মুকুলকে পিএসি কমিটির চেয়ারম্যান করার জেরে বিধানসভার কোনও কমিটিও বিজেপি নেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কথায়, “আমরা আগেই বলে রেখেছি, পিএসি-র চেয়ারম্যান পদ না ছাড়া হলে ১০ বা ১২ আমরা কোনও কমিটি নেব না।” সূত্রের খবর, বিধানসভার মোট ৪০ টি কমিটির মধ্যে সর্বাধিক ১০ টি কমিটি বিজেপিকে ছাড়তে রাজি হয়েছিল শাসকদল। কিন্তু পিএসি কমিটির চেয়ারম্যান পদই মুকুল রায় পেয়ে যাওয়ার কারণে আর কোনও কমিটি নিতে নারাজ বিজেপি।

আরও পড়ুন: TET: স্থগিতাদেশ তুলে নিল হাই কোর্ট, উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ শুরু করতে পর্ষদকে নির্দেশ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest