বঙ্গভঙ্গের দাবি ঘিরে অস্বস্তি বাড়ছে বিজেপির, বারলা-সৌমিত্রকে বার্তা দিলেন শুভেন্দু

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

পশ্চিমবঙ্গ ভেঙে পৃথক রাজ্য চেয়ে সরব হয়েছেন বিজেপি সাংসদ জন বার্লা এবং সৌমিত্র খাঁ। তবে নিজের দলের সাংসদদের এহেন দাবিকে উড়িয়ে দিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। দিলীপ ঘোষের সুরেই শুভেন্দু এদিন এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাদের দল রাজ্য ভাগের কথা বলেনি। যাঁরা এমনটা বলেছেন, তাঁরা তাঁদের ব্যক্তিগত মত দিয়েছে। পশ্চিমভঙ্গ ভাগ নিয়ে দলের মত জানিয়েছেন রাজ্য সভাপতি, আমার বক্তব্য সেটাই। রাজ্য ভাগের পক্ষে ভারতীয় জনতা পার্টির মত নেই।’

আরও পড়ুন : ‘গুজবে কান দেবেন না, ভ্যাকসিন নিন’, দেশবাসীকে বোঝাতে নিজের মায়ের উদাহরণ টানলেন প্রধানমন্ত্রী

শনিবার দলীয় সভায় যোগ দিতে ঝাড়গ্রামে গিয়েছিলেন শুভেন্দু। এদিন প্রথমে গোপীবল্লভপুরের বিজেপি কার্যালয়ে নয়াগ্রাম বিধানসভার দলীয় কর্মী ও গোপীবল্লভপুর পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন শুভেন্দু অধিকারী। গোপীবল্লভপুর থেকে বেরিয়ে ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে আরও একটি বৈঠক করেন শুভেন্দু। সেখানে গিয়ে রাজ্য ভাগের দাবির বিরোধিতা করলেও শুভেন্দুর গলায় শোনা যায় বঞ্চনার অভিযোগ। তিনি বলেন, ‘দক্ষিণ কলকাতার চারটে লোক জঙ্গলমহলকে, উত্তরবঙ্গকে বঞ্চিত করছে।’

জঙ্গলমহলের বঞ্চনার প্রসঙ্গে তুলে শুভেন্দু বলেন, ‘দক্ষিণ কলকাতার তিন-চারটে লোক তিরিশটা দফতর দখল করে রেখেছে। তাঁরা জঙ্গলমহলকে, উত্তরবঙ্গকে শিক্ষা-স্বাস্থ্য-চাকরি থেকে বঞ্চিত করছে। তাঁদের বাড়ির বিলাতি কুকুরও চাকরি পায়। কিন্তু জঙ্গলমহলের আদিবাসী ছেলেরা চাকরি পায় না। দক্ষিণ কলকাতার কটা লোক রাজ্য চালাবে, আমরা গাঁয়ের লোকেরা কি বানের জলে ভেসে এসেছি।’

আরও পড়ুন : কোভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নেওয়ার পরেও ডেল্টা প্লাসে আক্রান্ত রাজস্থানের বৃদ্ধা, বাড়ছে শঙ্কা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest