4.4 Magnitude Tremors felt at Darjeeling, Sikkim

Earthquake: পাহাড়ে ভূমিকম্প, রিখটার স্কেলে তীব্রতা ৪.৪

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল উত্তরবঙ্গ। আজ বিকেল ৪ টে নাগাদ ভূকম্পন অনুভূত হয় দার্জিলিঙে। কম্পন অনুভূত হয়েছে সিকিমেও। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের তীব্রতা ছিল ৪.৪। ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল নেপাল, সিকিম এবং চিনের সীমান্ত।

দার্জিলিঙের বিস্তীর্ণ এলাকায় আজ বিকেলে কম্পন অনুভূত হয়েছে। আচমকা এই ভূমিকম্পে আতঙ্ক ছড়িয়েছে স্থানীয়দের মনে। ভয়ে বাড়ি-ঘর, দোকান-পাট ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েন সাধারণ মানুষ। আতঙ্কে রাস্তায় ছোটাছুটি করতে দেখা যায় স্থানীয়দের। অনেক পর্যটকও রয়েছেন সেখানে। তাঁদের মনেও আতঙ্ক গ্রাস করেছে ভূমিকম্পের পর।

ভূমিকম্পের উৎসস্থল নেপালের সিন্ধুপালচক জেলা। নেপালের সিসমোলজিক্যাল সেন্টার থেকে জানানো হয়েছে, কাঠমান্ডুর থেকে ১১৪ কিলোমিটার পূর্বে মধ্য নেপালের সিন্ধুপালচক জেলার পানফুং জেলায় ভূমিকম্পের এপিসেন্টার। ওই ভূমিকম্পে এখনও পর্যন্ত কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, আজ পর পর দুটি ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে মধ্য নেপাল। রিখটার স্কেলে প্রথম কম্পনটির তীব্রতা ছিল ৪.৭। গতকালও মৃদু ভূমিকম্প হয়েছিল নেপালে। পশ্চিম নেপালের গোর্খা জেলায় ওই ভূমিকম্পের রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৪.৩।

এর আগে ৮ অক্টোবর, ভূমিকম্পের জেরে কেঁপে উঠল উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ অংশ। সেদিন রাত ১২টা নাগাদ এই কম্পন অনুভূত হয়। জলপাইগুড়ির বিভিন্ন জায়গা বিশেষ করে ধূপগুড়ি, দক্ষিণ দিনাজপুরের বিভিন্ন জায়গা মৃদু ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল। জানা গিয়েছে, মায়ানমার ছিল এই ভূকম্পনের উৎসস্থল। রিখটার স্কেলে এই কম্পনের তীব্রতা ৫.৫।

মায়ানমারের ম্যান্ডেলে ছিল এই ভূমিকম্পের এপিসেন্টার। ভূপৃষ্ঠ থেকে ১৪৮ কিলোমিটার গভীরে কম্পন হয়। যার জেরে দুলে ওঠে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা-সহ উত্তর পূর্ব ভারতের একটা বড় অংশ। শুধু ভারতই হয় বাংলাদেশের একাধিক জায়গাতেও এই ভূকম্পন টের পাওয়া গিয়েছে। ওপারবাংলার চট্টগ্রাম, সিলেটে ভূমিকম্প হয়। চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে সবথেকে বেশি কম্পন হয়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest