Dog's blood donation saved the dog's life, an example in siuri

কুকুরের রক্তদানে বাঁচল কুকুরের প্রাণ, সিউড়িতে নজির

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

দুই পথ কুকুরের রক্তদানে প্রাণ ফিরে পেয়েছে আরও দুই পথ কুকুর। এমনই ব্যতিক্রমী ঘটনার সাক্ষী হয়েছে বীরভূমের সিউড়ি। আর এই অবলা দুই সারমেয়র জীবনরক্ষায় সেতু হয়েছেন এক সরকারি পশু চিকিৎসক ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা।

জেলা সদর সিউড়িতে ‘নির্বাকন্ন’নামক এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা রয়েছে। তারা পশুদের নিয়ে কাজ করে। এই সংস্থার সদস্যরা কয়েক দিন আগে রামপুরহাট ও সাঁইথিয়ার রাস্তা থেকে উদ্ধার করেছিল দুই অসুস্থ কুকুরকে। সিউড়ি পশু হাসপাতালের চিকিৎসায় ধরা পড়ে একটি কুকুরের পায়ের ক্ষত গভীর হয়ে ক্যান্সারের দিকে এগোচ্ছে। অপরটির শরীরে আছে বৃহদাকার টিউমার। অবশেষে সিউড়ি পশু হাসপাতালের চিকিৎসক সৌরভ কুমার গত ২৪ সেপ্টেম্বর ক্যান্সারের দিকে যাওয়া কুকুরটির সামনের বাঁ পা অস্ত্রোপচার করে বাদ দেন। এরপর গত ১ সেপ্টেম্বর অপর কুকুরটির দেহ থেকে টিউমার আলাদা করা হয়।

সারমেয় দুটির অস্ত্রোপচার সফল হলেও তাদের দেহ থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছিল। ফলে কুকুর দুটিকে বাঁচাতে রক্তের প্রয়োজন হয়ে পড়ে। কিন্তু, রক্তদানে বাধা হয়ে দাঁড়ায় প্রশাসনিক জটিলতা। প্রথমত, কুকুরের জন্য রক্ত মিলবে কোথায়? দ্বিতীয়ত, কুকুরের জন্য রক্ত সংগ্রহের ব্যাগ পাওয়া যাবে কীভাবে?

সরকারি বিধি-নিষেধে রক্তের ব্যাগ জেলার পশু হাসপাতালে সরবারহ হয়নি। প্রশাসনের নানা স্তরে আর্জি জানিয়েও সরকারিভাবে সেই ব্যাগ মেলেনি। তবে হাল ছাড়তে নারাজ ‘নির্বাকন্ন’-র সদস্যরা অবশেষে পুনেতে থাকা একটি সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে নিয়ে আসে রক্তের ব্যাগ। তারপর খুঁজে-খুঁজে রক্তদাতা হিসাবে জোগাড় করে ফেলেন ৬টি পথ কুকুর। অবশেষে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রায় পাঁচ ঘণ্টা ধরে দুই পথ কুকুরের শরীর থেকে রক্ত নিয়ে ওই দুই পথ কুকুরের শরীরে প্রবেশ করানো হয়েছে। বর্তমানে চারটি কুকুরই বিপন্মুক্ত।

আরও পড়ুন: শুরুর আগেই ধাক্কা! ‘দুয়ারে রেশন’-এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে ডিলাররা

রাজ্যে পথ কুকুরদের রক্তদানের ঘটনা এটাই প্রথম বলে দাবি সিউড়ি পশু হাসপাতালের চিকিৎসক সৌরভ কুমার। তিনি বলেন, ‘অস্ত্রোপ্রচারের পর অসুস্থ কুকুর দুটির শরীরে রক্তের পরিমাণ মাত্রাতিরিক্ত কমে গিয়েছিল। অবিলম্বে রক্ত দিতে না পারলে বিপদের আশঙ্কা ছিল। রক্তদাতা হিসাবে যে কুকুরগুলি জোগাড় করা হয়েছিল তাদের রক্তের মেজর ক্রস ম্যাচিং করার পর দুটি কুকুরের সঙ্গে মেলে। সেই কুকুর দুটি সক্ষম হয় রক্তদানে। রাজ্যে পথ কুকুরদের রক্তদানের ঘটনা সম্ভবত এই প্রথম।’

কুকুর দুটি সুস্থ হয়ে ওঠায় খুশি নির্বাকন্নের সম্পাদক রাজর্ষি ঘোষ। তিনি বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরে পথ কুকুরদের নিয়ে কাজ করছি। ভালো লাগছে এমন একটা কাজ করতে পেরে। রক্তদাতা ও রক্তগ্রহীতা চার কুকুরই আমাদের তত্ত্বাবধানে আছে। সুস্থ আছে।’

আরও পড়ুন: অভিষেককে ফের দিল্লি তলব ED-র, এই নিয়ে তৃতীয় বার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest