gutkha and pan masala containing tobacco and nicotine banned west bengal one year

Breaking: পানমশলা, গুটখা বিক্রি নিষিদ্ধ হল রাজ্যে, কবে থেকে জেনে নিন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

তামাক স্বাস্থ্যের পক্ষে হানিকর!‌ সিনেমা থেকে সিরিয়াল, পর্দায় ভেসে ওঠে বারবার। কিন্তু ওই সাবধান বাণিতে কাজ হয়নি। পানমশলা, গুটখার মতো তামাকজাত দ্রব্য বাজারে বিকিয়ে চলছে রমরমিয়ে। তার জেরে মানুষের শরীরে থাবা বসাচ্ছে ক্যানসার। এবার এই তামাকজাত দ্রব্যই বেচা–কেনা নিষিদ্ধ করল রাজ্য সরকার।

সোমবার রাতে নির্দেশিকা জারি করল রাজ্যের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক। নির্দেশিকায় সই রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের খাদ্য সুরক্ষা দপ্তরের ডিরেক্টর তপন কান্তি রুদ্রের। নির্দেশিকায় স্পষ্ট লেখা, ৭ নভেম্বর থেকে বাংলায় গুটখা, পানমশলা প্রভৃতি তামাকজাত দ্রব্য উৎপাদন, বিক্রি, সংরক্ষণ, সেবন নিষিদ্ধ। আপাতত এক বছরের জন্য এই নিষেধাজ্ঞা জারি।

নিষেধাজ্ঞায় জানানো হয়েছে, জনসাধারণের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০১৯-এও এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার। সেসময়ও একবছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। ২০০৬ সালের খাদ্য সুরক্ষা আইনের অধীনে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বছর কয়েক আগে প্রথমবারের জন্য গুটখা এবং তামাকজাত পানমশলার মতো চিউইং টোবাকো কেনা-বেচার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন খাদ্য সুরক্ষা কমিশনার।

সিনেমা, সিনেমা হলের পর্দায় নিকোটিন এবং তামাকজাত পদার্থ সেবন থেকে দূরে থাকার সতর্কবাণী জারি হত। তবুও বন্ধ করা যায়নি এর সেবন। তাই ক্যান্সার বা দুরারোগ্য ব্যাধির থেকে দূরে রাখতে রাজ্য সরকারকে বারবার নিষেধাজ্ঞার পথ বেছে নিতে হয়।  সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, বাংলায় ২০ শতাংশ মানুষ এই পানমশলা, গুটখা সেবন করেন।  নিষেধাজ্ঞা জারির পর থেকে বাংলায় গুটখা, নিকোটিনজাত চিউইং পানমশলার ব্যবহার অনেক কমেছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest