Question rises as West Bengal Government advertises in NAS question paper

কেন্দ্রিয় পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে মমতার ছবি দেওয়া পাতাজোড়া বিজ্ঞাপনে বিতর্ক

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

সর্বভারতীয় ন্যাস পরীক্ষায় কন্যাশ্রী (Kanyashree) ও স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড (Student Credit Card)-এর ‘বিজ্ঞাপন’ দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহলে। ন্যাশনাল অ্যাচিভমেন্ট সার্ভে (NAS)পরিচালনা করে কেন্দ্র। রাজ্যগুলিতে শিক্ষার মান নির্ধারণের জন্য সব রাজ্যে এই সমীক্ষা চালানো হয়। প্রকাশিত হয় সমীক্ষার ফলাফলও। সেই সমীক্ষার প্রশ্নপত্রতেই এবার একটা গোটা পাতা জুড়ে কন্যাশ্রীর ‘বিজ্ঞাপন’।

শুধু তাই নয়, গোটা পাতাজুড়ে সরকারি ‘বিজ্ঞাপন’। রয়েছে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড ও কন্য়াশ্রীর বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য। রয়েছে খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবিও, সঙ্গে বিশ্ব বাংলার লোগো। আর বিজ্ঞাপনের পরবর্তী পাতায় রয়েছে সেই সংক্রান্ত প্রশ্নমালা। আর এই নিয়েই এবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে শিক্ষক মহলে। কেন এনএএসের মতো একটি সংস্থার প্রশ্নপত্রে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করে দিয়েছেন অনেকেই।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই করোনা টিকাকরণের শংসাপত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (PM Narendra Modi) ছবি থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই। সেই নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানিয়েছিলেন তিনি। আর এবার সেই একই কাণ্ড কেন তিনি নিজেই করে বসলেন? কেন সরকারি বিজ্ঞাপনের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে ন্যাশনাল অ্যাচিভমেন্ট সার্ভের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ সমীক্ষার প্রশ্নপত্রকে, প্রশ্ন তুলছেন শিক্ষাবিদদের একাংশ।

গুণীজনদের একাংশের মতে, সম্প্রতি বিভিন্ন জায়গায় ছবি ছাপার একটা অসুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। তারই একটি নজির এই ঘটনা। টিকার সার্টিফিকেটে প্রধানমন্ত্রীর ছবি ঠিক যতটা অপ্রাসঙ্গিক, ততটাই অপ্রাসঙ্গিক NAS-এর প্রশ্নপত্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখের ছবি দেওয়া সরকারি বিজ্ঞাপন। এব্যাপারে রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও প্রতিক্রিয়া এখনো মেলেনি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest