Six years old child admitted at Jalpaiguri hospital with fever died

Influenza in Jalpaiguri: হাসপাতালে মৃত্যু এক শিশুর, লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে মৃত্যু হল এক শিশুর। সোমবার রাতে জ্বর এবং অন্যান্য উপসর্গ-সহ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় তাকে। মঙ্গলবার তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সুপার রাহুল ভৌমিক। জানা গিয়েছে, শিশুটির নাম কাবেরী রায়। তার বয়স ছ’বছর। তার বাড়ি জলপাইগুড়ি জেলার মেখলিগঞ্জে।

করোনার (Coronavirus) মাঝে নয়া আতঙ্ক জলপাইগুড়িতে। জ্বরে (Fever) আক্রান্ত জলপাইগুড়ি শতাধিক শিশু। জেলা সদর হাসপাতালের শিশু বিভাগে এই মুহূর্তে চিকিৎসাধীন ১০২ জন শিশু। সোমবার ও রবিবার সংখ্যাটা ছিল যথাক্রমে ১৩০ ও ১২৬। অর্থাৎ গত দু’দিনের তুলনায় পরিস্থিতি অত্যন্ত সামান্য হলেও ভাল। তবে হাসপাতালের বর্হিবিভাগে এদিনও উপচে পড়ছে অসুস্থ শিশুর ভিড়। আক্রান্ত শিশুদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। তবে সোমবার রাত পর্যন্ত মৃত্যুর খবর ছিল না। যা কিছুটা হলেও আশা দেখাচ্ছিল।

আরও পড়ুন: গণেশকে কোলে নিয়ে দেবী দুর্গা রূপী মমতা, কটাক্ষ করতে ছাড়ল না বিজেপি

শিশুদের মধ্যে জ্বরের প্রকোপে আতঙ্কিত তাদের পরিজনেরা। কেন এই জ্বর, তা জানতে বিভিন্ন রকম পরীক্ষা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জলপাইগুড়ির ভারপ্রাপ্ত মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক জ্যোতিষচন্দ্র দাস। সোমবারই উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ থেকে পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল এসেছিল জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে। দলের সদস্যরা সেখানকার চিকিৎসকদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন।

ছ’বছরের ওই শিশুটির মৃত্যু নিয়ে জ্যোতিষ বলেছেন, ‘‘জ্বর হওয়ার পর অনেক দেরি করে আনা হয়েছিল শিশুটিকে। চিকিৎসার তেমন সুযোগ পাওয়া যায়নি।’’ যদিও শিশুদের জ্বর নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। চিকুনগুনিয়া, এনসেফালাইটিস, এনএস১, ডেঙ্গি মতো বিভিন্ন রকম পরীক্ষা করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: বারুইপুরে ফার্নিশ ব্লাস্ট, আহত কমপক্ষে ১৫ শ্রমিক, চারজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest