দল বদল করা অনেক বিজেপি নেতার গলাতেই পুরনো দল তৃণমূলে ফিরে আসার আর্তি শোনা গিয়েছে নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর থেকে৷ এবার খোদ মুকুল রায়ের পুত্র বীজপুরের প্রাক্তন বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়ের ফেসবুক পোস্ট ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে উঠল৷ তবে প্রাথমিক ভাবে শুভ্রাংশুর পোস্টের যা অর্থ, তাতে নিজের দল বিজেপি-র জন্যই আত্মসমালোচনার সুর বার্তাই রয়েছে৷ তবে এই পোস্ট পুরনো দল তৃণমূলের জন্য কোনও সংকেত রয়েছে কি না তা স্পষ্ট নয়৷ বিশেষত গতকাল থেকে প্রধানমন্ত্রী- মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক, মুখ্যসচিবের বদলির নির্দেশ ঘিরে যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে, তার মধ্যে শুভ্রাংশুর এই পোস্ট নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ৷

আরও পড়ুন : ‘যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় প্রাণঘাতী হামলা’,মুখ্যসচিব বদলি ইস্যুতে মমতার পাশে সোনিয়ারা

ফেসবুক পোস্টে মুকুল পুত্র লিখেছেন, ‘জনগণের সমর্থন নিয়ে আসা সরকারের সমালোচনা করার আগে, আত্মসমালোচনা করা বেশি প্রয়োজন৷ ‘ তবে কী প্রেক্ষিতে তিনি এই পোস্ট করলেন, তা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি শুভ্রাংশু৷ প্রতিক্রিয়া পাওয়া না গেলেও শুভ্রাংশুর পোস্ট ঘিরে রাজ্য বিজেপি-র অন্দরেও আলোড়ন ছড়িয়েছে৷ এবারের নির্বাচনে বীজপুর কেন্দ্রে পরাজিত হয়েছেন প্রাক্তন বিধায়ক শুভ্রাংশু৷ ২০১৯ সালের মে মাসে বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন তিনি৷

প্রসঙ্গত, গতকাল শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলাইকুন্ডায় গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠকে অংশ না নেওয়ায় বিজেপি নেতারা সরব হয়েছেন৷ মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্য সরকারের মনোভাবের সমালোচনা করে ট্যুইট করেছেন কেন্দ্রীয় নেতারা৷ বাদ যাননি দলের রাজ্য নেতারাও৷ এরই মধ্যে দিল্লিতে বদলি করা হয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে৷ যা নিয়ে কেন্দ্র- রাজ্য সংঘাত তীব্র হয়েছে৷

তবে, শুধু বৈঠক বিতর্ক নয়, তৃতীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্যের বিরুদ্ধে একাধিক পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্র৷ নির্বাচনী সন্ত্রাসের অভিযোগে রাজ্যে এসেছে কেন্দ্রীয় দল৷ রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়েও বিজেপি-র কেন্দ্রীয় নেতারা সরব হয়েছে৷ একই সুর শোনা গিয়েছে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের গলাতেও৷ আবার কয়েকদিন আগে রাজ্যের দুই মন্ত্রী সহ চার নেতাকে নারদ মামলায় সিবিআই হঠাৎ গ্রেফতার করে৷ যে ঘটনাকে ভাল ভাবে নেননি রাজ্য বিজেপি-র অনেক নেতাও৷ প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও তাঁরা স্বীকার করে নেন, এর ফলে সহানুভূতি পাবে রাজ্যের শাসক দলই৷

সবমিলিয়ে গত কয়েকদিনের ঘটনাপ্রবাহে যখন শাসক দলের সঙ্গে বিজেপি-র চাপানউতোর তুঙ্গে, তখন শুভ্রাংশু রায়ের এই পোস্ট ঘিরে জল্পনা হওয়াই স্বাভাবিক৷ বিশেষত দলের কেন্দ্র এবং রাজ্য স্তরের নেতারা যখন রাজ্য সরকারের সমালোচনায় সরব, তখন তিনি যে সেই মতের শরিক নন, তা কার্যত এই ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমেই বুঝিয়ে দিলেন বীজপুরের প্রাক্তন বিধায়ক৷ শুভ্রাংশুর এই পোস্ট দল কীভাবে নেয়, শুভ্রাংশু নিজেই বা কোনও ব্যাখ্যা দেন কি না, সেটাই এখন দেখার৷ তবে শুভ্রাংশুর এই ফেসবুক পোস্টে আরও এক দফা অস্বস্তি বাড়ল রাজ্য বিজেপি-র৷

আরও পড়ুন : বাংলায় মোদীর ডাক বিরোধী দলনেতাকে, গুজরাতে নয় কেন, প্রশ্ন মোদীরাজ্যের বিরোধী নেতার

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *