supreme court rejects plea of Abhishek Bandyopadhyay against justice Abhijit Gangopadhy

Supreme Court: সংশোধিত নয়, বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নতুন আর্জি জানানোর সুপ্রিম নির্দেশ অভিষেককে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পাঁচ দফা অভিযোগ এনে অভিষেক আবেদন জানিয়েছিলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক। সেই সঙ্গে বিচারপতি অমৃতা সিনহার এজলাস থেকে নিয়োগ দুর্নীতি মামলার সরানোর আর্জি জানিয়েছিলেন তিনি। সূত্রের খবর, ওই মামলা খারিজ করে নতুন করে আর্জি জানানোর কথা জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

শীর্ষ আদালতের নির্দেশে জানানো হয়েছে, ২০২৩ সালের ২৮ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে অভিষেকের মামলাগুলি কলকাতা হাই কোর্টের অন্য বিচারপতিকে দেওয়া হয়েছে। সে কারণেই অভিষেক এখন যে আর্জি জানিয়েছেন, তা আর ‘গ্রহণযোগ্য নয়’। একই সঙ্গে আদালত জানিয়েছে, ওই আবেদন ‘ভুল ধারণাবশত’ এবং ‘ভুল জায়গায়’ দাখিল করা হয়েছে। এর কোনও ‘যুক্তি নেই’।

এ প্রসঙ্গে অভিষেকের আইনজীবীর বক্তব্য, ১৮ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার এক নির্দেশে জানিয়েছেন, অভিষেকের আবেদন ফেরত পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, ‘‘অভিষেকের অভিযোগ খতিয়ে দেখার সময় শীর্ষ আদালতের পর্যবেক্ষণ, ২০২৩ সালের ওই স্পেশাল লিভ পিটিশন (এসএলপি)-এর শুনানি ইতিমধ্যে চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে। শীর্ষ আদালতের আরও পর্যবেক্ষণ, ২০২৩ সালের ২৮ এপ্রিল যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, তা ইতিমধ্যে কার্যকর করা হয়েছে। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাস থেকে মামলা সরানো হয়েছে। রেজিস্ট্রার নতুন করে পদক্ষেপ করার কথা জানিয়েছেন। স্বাধীন ভাবে আইনি প্রক্রিয়ায় মাধ্যমে অভিযোগ জানানোর কথাও বলেছেন।’’ এর পরেই আইনজীবী বলেন, ‘‘সুপ্রিম কোর্টের সামনে নতুন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অভিযোগ জানানোর পদক্ষেপ করছি।’’

সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশ সবিস্তারে ব্যাখ্যা করে দিয়েছেন তৃণমূলের মুখপাত্র তথা রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ। এক্স হ্যান্ডলে তিনি জানিয়েছেন, শীর্ষ আদালতে অভিষেকের কোনও পিটিশন খারিজ হয়নি। বিচারপতির মন্তব্য সংক্রান্ত মামলায় আগের রায়ের উপর একটি মডিফিকেশন অ্যাপ্লিকেশন (Modified Application) দিয়েছিলেন অভিষেকের আইনজীবী। তার পরিপ্রেক্ষিতে রেজিস্ট্রার জানিয়েছেন MA নয়, ফ্রেশ কজ অফ অ্যাকশনের পিটিশন দিতে। সেটা করা হচ্ছে। বিভ্রান্তি কাম্য নয়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest