Suvendu Adhikai attacks Madan Mitra as Established Alcoholic, Sishir Adhikari gave me the first drink! Madan Mitra replied

মদন মিত্র ‘পরিচিত মাতাল’: কটাক্ষ শুভেন্দুর, প্রথম মদ খাইয়েছিলেন শিশিরদা- এল জবাব

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

মমতার কথায় তিনি ‘রঙিন ছেলে’। সেই মদন মিত্রকে (Madan Mitra) বেনজির আক্রমণ করলেন শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। প্রাক্তন মন্ত্রীকে ‘চিহ্নিত মাতাল’ বলে কটাক্ষ করলেন বিধানসভার বিরোধী নেতা। কিন্তু হঠাৎ কেন এমন আক্রমণ?

সম্প্রতি খড়গপুরের এক সভা থেকে রাজ্যের বিরোধী দলনেতাকে আক্রমণ শানান মদন মিত্র। জানান, বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে তাঁর সঙ্গে লড়াইয়ে নামুন তিনি। তাঁর কথায়, ‘শুভেন্দু মায়ের লাল হলে নন্দীগ্রাম থেকে ইস্তফা দিক। আমি কাল কামারহাটি ছেড়ে দিচ্ছি। ২৯৪ বিধানসভার যেকোনও আসনে চ্যালেঞ্জ দিচ্ছি। শের ভুখা মার জায়েগা, লেকিন চুহা নেহি খায়েগা।” বুধবার সাংবাদিকরা মদনের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে প্রতিক্রিয়া চাইতেই তাচ্ছিল্যের সুর শোনা যায় শুভেন্দুর গলায়। তিনি কটাক্ষের সুরে বলেন, “প্রথম কথা একজন চিহ্নিত মাতালের কথার উত্তর দেওয়া মুশকিল।” ফের জোর দিয়ে শুভেন্দুকে বলতে শোনা যায়, “একজন চিহ্নিত মাতাল। এস্টাব্লিশড মাতাল… সারা পশ্চিমবঙ্গের লোক জানে”।

আরও পড়ুন: ফ্ল্যাটে ঝুলছে স্বামীর দেহ, স্ত্রীর দেহ পড়ে মাটিতে, দম্পতির রহস্যমৃত্যুতে চাঞ্চল্য হাওড়ায়

বিরোধী দলনেতার এই কটাক্ষের পাল্টা জবাব দেন কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক। রাতে তিনি দেগঙ্গায় একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার আগে শুভেন্দুর ওই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বলেন, ‘‘জীবনে প্রথম মদ খেয়েছিলাম শুভেন্দুর বাবার সঙ্গেই। কী যেন একটা ব্র্যান্ড খাইয়েছিলেন। আমরা যাচ্ছিলাম কেশপুরের দিকে। কী একটা নাম বললেন যেন, শিবাস…ফিবাস হবে। শিশিরদা কী একটা মিশিয়ে দিয়ে বললেন, খাও। আমি তো খেয়ে প্রায় বমি করে দিয়েছিলাম।’’

প্রসঙ্গত, শুভেন্দুর বাবা কাঁথির সাংসদ শিশির অধিকারী প্রথম জীবনে কংগ্রেস করলেও, ২০০০ সালে তিনি যোগ দেন তৃণমূলে। ২০২০ সালের ১৯ ডিসেম্বর শুভেন্দু বিজেপি-তে যোগ দিলে দলের সঙ্গে মতপার্থক্য তৈরি হয় শিশিরের। চলতি বছরের ১ মার্চ এগরায় অমিত শাহ জনসভা করতে এলে তাঁর সভাতে গিয়ে ভাষণওদেন তিনি। তবে সরাসরি বিজেপি-তে যোগ দেননি কখনও। অশীতিপর শিশির এখন বাড়ি থেকে বারও হন না। কংগ্রেস এবং তৃণমূল, দু’দলেই তাঁর সতীর্থ ছিলেন মদন।

আরও পড়ুন: Belur Math: ১ জানুয়ারি বন্ধ থাকছে বেলুড় মঠ, বন্ধ থাকবে আরও ৩ দিন

 

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest