Two lady looted money, jewellery and all from school teachers house at purba burdwan

কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়ে পরিচারিকা নিয়োগ, ভয়ঙ্কর পরিণতি বর্ধমানের দম্পতির!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়ে পরিচারিকা নিয়োগ করেছিলেন। তাতেই ঘটল বিপদ! দম্পতিকে খাবারের সঙ্গে মাদক মিশিয়ে খাইয়ে অচৈতন্য করে সর্বস্ব লুঠ করে পালানোর অভিযোগ উঠল দুই মহিলার বিরুদ্ধে। পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার সাতগাছিয়া জীবন ঠাকুর এলাকার ঘটনা। নিমাই ভট্টাচার্য ও সোমা ঘোষ ভট্টাচার্য মেমারি থানায় এই ঘটনায় অভিযোগ করেন।

গত ৭ নভেম্বর নিমাই ভট্টাচার্য তার অসুস্থ স্ত্রীকে দেখভালের জন্য পরিচারিকা চেয়ে খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দেন। কাগজে বিজ্ঞাপন দেখে গত ১২ নভেম্বর পরিচারিকার কাজ করতে হাজির একজন বৃদ্ধা ও একজন মাঝ বয়সী মহিলা। অভিযোগ, এরপর দম্পতির বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে রাতে খাবারের সঙ্গে কিছু মিশিয়ে দিয়ে স্বামী-স্ত্রীকে অচৈতন্য করে সোনার গয়না, মূল্যবান সামগ্রী লুঠ করে নিয়ে দুই মহিলা পালিয়ে যান।

অভিযোগ, সেদিন রাতে ওই দুই মহিলা আসার পর রাত ৮টা নাগাদ শিউলিপাতার বড়ার সঙ্গে দম্পতিকে কিছু খাওয়ানো হয়। এরপরই তাঁরা অচৈতন্য হয়ে পড়েন। পরদিন ১৩ নভেম্বর সকালে তাঁদের চিকিৎসার জন্য প্রথমে সরকারি হাসপাতাল ও পরে বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। কিছুটা সুস্থ হয়েই মেমারি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তাঁরা।

ভট্টাচার্য দম্পত্তির অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে বুধবার নদিয়ার কল্যাণী থেকে মেমারি থানার পুলিশ এক মহিলাকে গ্রেফতারও করেছে। ধৃতের নাম নীলু দাস বৈরাগ্য। বৃহস্পতিবার তাঁকে বর্ধমান আদালতে তোলা হয়। একইসঙ্গে দ্বিতীয় অভিযুক্তের খোঁজেও পুলিশ তল্লাশি শুরু করেছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest