China will join hands with the Taliban, Imran said, breaking the shackles of slavery

তালিবানের সঙ্গে হাত মেলাবে চিন, দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙেছে বললেন ইমরান

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে দেখতে দেখতে একটা দেশ চলে গেল তালিবানি জঙ্গিদের কবলে। গজনি, হেরাত, কান্দাহারের পর রবিবার কাবুলও দখল করে তালিবান। এই আবহে রবিবার সারাদিন ধরেই আতঙ্কের মধ্যে কাটিয়েছেন বেশিরভাগ আফগানরা। রাষ্ট্রপতি প্রাসাদও ইতিমধ্যেই তাদের দখলে গিয়েছে। দেশ ছেড়ে অন্যত্র গিয়েছে পদত্যাগ করা রাষ্ট্রপতি আশরাফ গনি। ইতিমধ্যেই আফগানিস্তানে অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে তালিবান।

আরও পড়ুন : তিন দশকের সম্পর্ক ছেড়ে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে অসমের ঘরের মেয়ে সুস্মিতা দেব

চিনের পরে তালিবানের পাশে দাঁড়াল পাকিস্তানও। সোমবার তালিবানের উত্থান নিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বললেন, ‘‘এতদিন পরে দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে ফেললেন আফগান মানুষেরা।’’ রবিবার কাবুল দখলের পরই স্পষ্ট হতে থাকে আফগান সরকারকে পরাস্ত করে দেশে ক্ষমতা দখল করবে তালিবান। তখনই তালিবানের সঙ্গে পাকিস্তান ও চিনের যোগসূত্রের কথা চর্চায় উঠে আসে। সেই প্রেক্ষিতে ইমরানের বক্তব্য যথেষ্টই গুরুত্বপূর্ণ।

ডন সূত্রে জানানো হয় যে এদিন ইমরান খান এদিন বলেন, ‘বিদেশি সংস্কৃতির আদবকায়দা আয়ত্ত করে অনেকেই মজা পান। কিন্তু মনে রাখতে হবে, অন্যের সংস্কৃতি ঘাড়ে চেপে বসলে তা দাসত্বের সমান। আসল দাস হয়ে বেঁচে থাকার থেকেও এ আরও কষ্টের। এই শৃঙ্খল ভেঙে ফেলা প্রয়োজন।’

সোমবার ইমরান বলেন, ‘‘অনেকেই অন্য সংস্কৃতির আদবকায়দা আয়ত্ত করে মজা পান। কিন্তু মনে রাখবেন, অন্যের সংস্কৃতি ঘাড়ের উপর চাপিয়ে দেওয়াটা দাসত্বের সমান। আসল দাস হয়ে বেঁচে থাকার থেকেও এ আরও কষ্টের। এই শিকল ভেঙে ফেলা দরকার। আফগানিস্তানে সেই কাজটাই সফল ভাবে পালিত হচ্ছে।’’

আরও পড়ুন : কাবুল দখলের পর ভারত সরকারের বন্ধুত্ব চাইল ‘নয়া’ তালিবান

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest