Historic "Bomb Cyclone" Freezes North America, death toll 60

Bomb Cyclone: আমেরিকায় তুষার-তাণ্ডব! বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ, মৃত অন্তত ৬০

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

তুষারঝড়ে বিধ্বস্ত গোটা উত্তর আমেরিকা। প্রাণঘাতী হয়ে উঠছে ‘বম্ব সাইক্লোন’। পুরু বরফের স্তরে ঢেকেছে রাস্তাঘাট, বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ ব্যবস্থা। তুষারঝড়ে (Bomb Cyclone) দেশ জুড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬০। হাজার হাজার মানুষ দুর্যোগের সময় বিদ্যুৎহীন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন। আমেরিকার হাওয়া অফিস ‘ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস’ (এনডব্লিউএস) জানাচ্ছে, কোথাও ৮ ফুট, কোথাও বা ১০ ফুট পুরু বরফের আস্তরণ জমে গেছে রাস্তাঘাটে।

তুষারঝড়ের জেরে পূর্ব আমেরিকার প্রায় ২ লাখ বাসিন্দাকে প্রবল ঠাণ্ডার মধ্যেই বিদুৎ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় দিন কাটাতে হচ্ছে।মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগে বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা কম, জানিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। শুরু হয়েছে বরফ কেটে রাস্তা পরিষ্কারের কাজ। পাশাপাশি চলছে দ্রুত বিদ্যুৎ পরিষেবা চালু করার চেষ্টা। বিদ্যুৎ চালু করতে না পারলে এবং তাপমাত্রার পারদ ঊর্ধ্বমুখী না হলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:

মঙ্গলবার পর্যন্ত বন্ধ রাখা হচ্ছে বুফালো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ইতিমধ্যে কয়েক হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।মার্কিন প্রশাসন (US Administration) সূত্রে খবর, ১৯৭৭-র পর এতো বিধ্বংসী তুষারঝড় আর কখনও দেখেনি নিউ ইয়র্কের বুফালো।

হাওয়া অফিসের সতর্কতা, তাপমাত্রা আরও নীচে নামবে। ঠান্ডায় তীব্র সমস্যায় পড়েছেন মানুষজন। ফ্রস্টবাইটের আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এই সুপার সাইক্লোন বোমের মতোই আছড়ে পড়ে, তাই এই নাম। বম্ব সাইক্লোনের কারণে প্রতি বছরই এই সময়টাতে ভোগান্তি বাড়ে। উপকূলবর্তী অঞ্চলে ৫০ থেকে ৮০ মাইল প্রতি ঘণ্টা বেগে ঝোড়ো হাওয়া দেয়(Bomb Cyclone)। সঙ্গে চলে তুষারপাত।

আরও পড়ুন: Charles Sobhraj: ফ্রান্সের উদ্দেশে পাড়ি দিল ‘বিকিনি কিলার’ চার্লস শোভরাজ, প্রকাশ্যে প্রথম ছবি

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest