বৃহস্পতিবার আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ফোনে কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কমলাই নিজে থেকে মোদীকে ফোন করেছিলেন, সংবাদমাধ্যমে তেমনটাই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সরকারের একটি সূত্র।

এদিনের কথোপকথনে কমলা হ্যারিস (Kamala Harris) ভারত-মার্কিন সম্পর্ককে জোরদার করার কথা বলেন। মূলত কথা হয় টিকা (COVID vaccine) বণ্টন নিয়ে। ফোনালাপের পর মোদী বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগেই আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের সঙ্গে কথা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী টিকা সরবরাহের কর্মসূচির আওতায় ভারতেও প্রতিষেধক সরবরাহের যে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, তার প্রশংসা করছি।’ সঙ্গে তিনি বলেন, ‘টিকা নিয়ে ভারত-আমেরিকা সহযোগিতা আরও মজবুত করা এবং কোভিড-পরবর্তী বিশ্বের স্বাস্থ্য ও অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর বিষয়েও আমরা আলোচনা করেছি।’

সম্প্রতি আমেরিকার উদ্বৃত্ত কোভিড টিকা অন্য দেশে পাঠানোর ঘোষণা করেছে আমেরিকার সরকার। বিভিন্ন দেশে টিকা সরবরাহ করার ‘কোভ্যাক্স’ নামের যে প্রকল্প চালু করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ, সেই প্রকল্পের মাধ্যমেই দেশে উদ্বৃত্ত টিকার ৭৫ শতাংশ অন্য দেশে পাঠানো হবে জানিয়েছে বাইডেন-হ্যারিস সরকার। তাতে প্রচুর টিকা ভারতও পাবে।

আরও পড়ুন: ফ্লোরিডায় স্কুলে খেলাধুলায় অংশ নিতে পারবেন না রূপান্তরকামীরা

হোয়াইট হাউসের তরফে জানানো হয়েছে, চলতি মাসের মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে করোনা টিকার কমপক্ষে আট কোটি ডোজ পাঠাবে আমেরিকা। প্রথম দফায় বিশ্বে ২.৫ কোটি টিকার ডোজ দেবে। রাষ্ট্রসংঘের কোভ্যাক্সের মাধ্যমে ১.৯ কোটি ডোজ দেওয়া হবে। তাতে আবার ৭০ লাখ ডোজ ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশের মতো এশিয়ার বিভিন্ন দেশে পাঠাবে আমেরিকা। তাছাড়া কানাডা, ভারত, মেক্সিকো এবং দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশে সরাসরি ৬০ লাখ ডোজ পাঠানো হবে জানানো হয়েছে। সূত্রের খবর, সেই পরিকল্পনার বিষয়ে জানানোর জন্যই এদিন মোদীকে ফোন করেন কমলা। সেইসঙ্গে মেক্সিকো, গুয়েতেমালা, ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর মতো দেশেও কমলার ফোন যায়।

প্রসঙ্গত, গত মাসেই আমেরিকায় সফর করেছিলেন কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সে বারও কোভিড পরিস্থিতি এবং টিকা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বাইডেন প্রশাসনের উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন: ইসরায়েলের সরকার প্রধান হচ্ছেন নাফতালি বেনেত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *