How to carry your pet in train: Rules and Charges

রেলের এই নিয়মগুলি মানলেই পোষ্যকে সঙ্গে নিয়ে বেড়াতে যেতে পারবেন…

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

অনেকেই জানেন না যে, প্রিয় পোষ্যকে সঙ্গে নিয়ে রেল গাড়িতে চাপা যায়। এর জন্য বিশেষ কয়েকটি নিয়ম আছে। টিকিটও কাটতে হয় পোষ্যদের জন্য। এবং ছোটো বড় মাঝারি যে আকারেরই হোক না কেন পোষ্যকে ট্রেনে ওঠার অনুমতি দেয় রেলকর্তৃপক্ষ। আর হ্যাঁ, শুধু কুকুরই নয়, আইন মেনে ভারতীয় রেলে চেপে বেড়াতে নিয়ে যাওয়া যায় যে কোনও পোষ্যকেই।

  • ভারতীয় রেল আইনের 77-A ধারা অনুযায়ী রেলের পশুদের জন্য নির্ধারিত কামরায় যাতায়াত করতে পারে পোষ্যরা। তার জন্য নির্দিষ্ট অর্থ প্রদান করতে হয়। মানে পশুদের জন্য নির্দিষ্ট অঙ্কের অর্থের টিকিট কাটতে হয়। কুকুর নিয়ে রেলে চড়লে ৩০ টাকার টিকিট কাটতে হয়। গাধা, ভেড়া, ছাগল, পাখি কিংবা ছোটো পশুদের টিকিটের মূল্যও ৩০ টাকা। উঁট, খচ্চর, গরু, মহিষ বা অন্য কোনও শিংওয়ালা পশুর জন্য ২০০ টাকার টিকিট কাটতে হয়। ঘোড়ার টিকিটের দাম ৭৫০ টাকা। এবং আপনি যদি একটি আস্ত হাতির মালিক হন তাহলে আপনাকে ১৫০০ টাকার টিকিট কাটতে হবে।
  • পশুদের কোনও ক্ষতি হলে অবশ্য রেল কর্তৃপক্ষ কোনও দায়িত্ব নেয় না। ক্ষতির তালিকায় রয়েছে পশুর মৃত্যু, অসুস্থতা, খাদ্য বা জল সরবরাহ, অতিরিক্ত পশুর উপস্থিতি ইত্যাদি। রেল দুর্ঘটনায় পশুর মৃত্যু হলেও কোনও ক্ষতিপূরণ মেলে না।
  • রেলের মাধ্যমে আইন মেনে পশু সরবরাহ করার পর গ্রহীতা কোনও কারণে স্টেশনে পৌঁছোতে দেরি করলেও রেল তাঁর জন্য অপেক্ষা করে না।

আরও পড়ুন: পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ও ভয়ংকর গুহা! ভিয়েতনামের হ্যাংসন ডুং এখনও রহস্যে মোড়া…

  • কোনও যাত্রী ছোটো বা বড় আকারের ল্যাব্রেডর, বক্সার, জার্মান শেপার্ড ইত্যাদি পোষা কুকুর নিয়ে যেতে চাইলে প্রথম শ্রেণি বা প্রথম শ্রেণির এসি কামরায় ব্যক্তিগতভাবে বহন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে যাত্রীকে গোটা কামরা বুক করতে হবে।
  • প্রথম শ্রেণি বা প্রথম শ্রেণির এসি কামরা অন্যান্য যাত্রীরা আপত্তি জানালে বা পোষ্যর উপস্থিতিতে বিরক্ত হয়ে অভিযোগ জানালে পোষ্যটিকে রেল গার্ডের ভ্যানে পাঠিয়ে দিতে হয়। সেক্ষেত্রে কোনও পোষ্যের টিকিটের অর্থ ফেরত দেওয়া হয় না।
  • পোষ্যের জন্য টিকিট বুক করা না হলে ছয় গুণ বেশি পর্যন্ত জরিমানা দিতে হতে পারে।
  • এসি স্লিপার ক্লাস, এসি চেয়ার কার, সাধারণ স্লিপার ক্লাস, সেকেন্ড এসি ক্লাসে কুকুরের প্রবেশ নিষেধ। ধরা পড়লে সঙ্গে সঙ্গে কুকুরটিকে ব্রেক ভ্যানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুন: এই ৫ টি দেশে গিয়ে বসবাস করলে মিলবে লক্ষাধিক টাকা অনুদান, কোটি টাকার জমি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest