দিলীপ ঘোষের বৈঠকে গরহাজির বনগাঁর সাংসদ ও ৩ বিধায়ক, তবে কি অন্তর্দ্বন্দ্ব বাড়ছে অন্তর্দ্বন্দ্ব?

বাঁকুড়া, হেস্টিংসের পর এবার বনগাঁ (Bongaon)। ফের বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সভায় গরহাজির একাধিক নেতা, বিধায়ক ও সাংসদ। দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে বৈঠকে কেন যোগ

বিজেপির অন্দরেই দিলীপকে ঘিরে বিক্ষোভের ছক, ভাইরাল অডিয়ো

গত ৪ জুন দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে ঘিরে বিজেপি কর্মীদের বিক্ষোভ প্রদর্শনের ছক কি আগেই কষা হয়েছিল? সেই পরিকল্পনায় ইন্ধন জুগিয়েছিলেন কি দলেরই কোনও

‘সরকারের দমবন্ধ করে দেব’, হুঁশিয়ারি দিলীপের! পাল্টা দিল তৃণমূলও

যা দাবি করেছিল, বাংলার ভোটে তার ধারেকাছেও পৌঁছতে পারেনি BJP। মাত্র ৭৭ বিধায়ক পেয়েই আটকে যেতে হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। ইতিমধ্যেই অবশ্য বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা

ছন্নছাড়া সংগঠন নিয়ে বেসামাল বিজেপি, হুগলিতে লকেট-সুবীর সঙ্ঘাতেই ঘেরাও দিলীপ

হুগলি লোকসভা এলাকার সাংগঠনিক বৈঠকে যোগ দিতে গিয়ে চুঁচুড়ায় কর্মী বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। প্রকাশ্যেই সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় থেকে রাজ্য সম্পাদক দীপাঞ্জন গুহের বিরুদ্ধে স্লোগান ওঠে।

‘সব জিনিসে GST থাকলে ভ্যাকসিনে থাকবে না কেন?’, দিলীপের যুক্তিতে বিতর্ক

বিশেষত ভ্যাকসিনের উপর থেকে জিএসটি প্রত্যাহারের দাবি উঠেছে বিভিন্ন রাজ্যের তরফে। এছাড়া অক্সিজেন, রেমডেসিভিরের মতো ওষুধও জিএসটি তালিকার বাইরে রাখার পক্ষে সওয়াল করেছেন অনেকে।

বাংলায় হারের পরে দেশ জুড়ে মমতাবিরোধী স্বর তৈরিতে মরিয়া মোদী-শাহরা

বিজেপি-র এই সর্বভারতীয় কর্মসূচির নাম দেওয়া হয়েছে, ‘দেশ কে সাথ এক সংবাদ’। এ জন্য মোদী ও নড্ডার ছবি দেওয়া যে পোস্টার তৈরি হয়েছে তাতে দলের মূল বক্তব্য ‘বাংলা জ্বলছে, হিংসাই কি সমাধান?’ প্রশ্নের আকারে লেখা হয়েছে।

আমফানের থেকে শিক্ষা নিয়ে ভাল কাজ করেছে রাজ্য, রাজ্যপালের পর মমতা সরকারের ‘প্রশংসা’য় দিলীপ

আমফানের পর বারবার রাজ্যকে বিঁধেছে বিজেপি। ত্রাণ থেকে ক্ষতিপূরণ সবেতেই তৃণমূল সরকারকে কাঠগড়ায় তুলেছেন দিলীপ ঘোষ। সেই নেতার গলায় এবার অন্য সুর।

দিলীপ ঘোষকে ২৪ ঘণ্টার জন্য ভোটপ্রচারে নিষিদ্ধ করল কমিশন, শো-কজ সায়ন্তনকে

দিলীপ ঘোষের  ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগে কমিশন উল্লেখ করেছে, ওই মন্তব্য চরম প্ররোচনামূলক। যার যেরে আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থার অবনতি হতে পারে।