parliament: personal Assistants cannot submit questions on behalf of MPs, new rule after tmc mp mahua moitra row

parliament: সাংসদদের হয়ে প্রশ্ন জমা দিতে পারবেন না অন্য কেউ, মহুয়া বিতর্কের জেরে নিয়ম বদল সংসদে!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

টাকা নিয়ে সংসদে প্রশ্ন ইস্যুতে শোরগোল জাতীয় রাজনীতিতে। এই অভিযোগে বিদ্ধ তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রর (Mahua Moitra) বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার পথে সংসদ (Parliament)। ইতিমধ্যেই এথিক্স কমিটি তাঁর সাংসদ পদ বাতিলের সুপারিশে সিলমোহর দিয়েছে। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে (Winter Session)। আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে এই অধিবেশন। আর মহুয়া বিতর্কের জেরেই এবার সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বের নিয়ম বদল হতে চলেছে বলে সূত্রের খবর। এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই একপ্রস্থ আলোচনা হয়েছে। এবার থেকে আপ্ত সহায়ক বা অন্য কেউ নয়, সাংসদ যে প্রশ্ন করতে চান, তা তাঁকে নিজেকেই টাইপ করতে হবে।

মহুয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি তাঁর সাংসদ অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড ব্যবসায়ী দর্শন হিরানন্দানিকে দিয়েছিলেন। সূত্রের খবর, এর পরিপ্রেক্ষিতে লোকসভার সাংসদদের হয়ে তাঁদের ব্যক্তিগত আপ্তসহায়কদের অনলাইনে প্রশ্ন জমা দেওয়ার যে অধিকার ছিল, তা আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। আসন্ন শীতকালীন অধিবেশনে প্রশ্ন করতে হলে, সাংসদদের নিজস্ব অনলাইন অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে বা হাতে লিখেই তা করতে হবে। এ নিয়ে ভবিষ্যৎ কর্মপদ্ধতি ঠিক করতে গতকাল একটি বৈঠকেও বসে লোকসভার সচিবালয়। তবে আগামী দিনে আপ্তসহায়কদের অ্যাকাউন্ট পরিচালনার অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া হবে কি না, সে বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত বৈঠকে হয়নি।

আদানি বিরোধিতায় টাকা নিয়ে সংসদে প্রশ্ন তোলার অভিযোগে যত চাপ বেড়েছে, কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদও (TMC MP) লড়াইয়ের মোকাবিলায় নিজেকে তত শক্তপোক্ত করে তুলেছেন। দুবাই থেকে পাসওয়ার্ড (Password) দিয়ে সাংসদের ইমেল অ্যাকাউন্টে লগ ইন হওয়ার বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তোলায় এথিক্স কমিটির সামনে মহুয়া জানিয়েছিলেন, তাঁর বলে দেওয়া প্রশ্ন অন্য অফিসের এক কর্মীকে দিয়ে তিনি টাইপ করিয়েছিলেন। যতবার তিনি প্রশ্ন তৈরি করেছিলেন, ততবারই অ্যাকাউন্টে লগ ইন করে প্রশ্ন টাইপ করা হয়েছে। তাঁকে জ্ঞাতার্থেই সবটা হয়েছে বলে তিনি সংবাদমাধ্যমেও জানান।

আর এই পাসওয়ার্ড শেয়ার নিয়েই বেঁধেছে যত গোল। কেন সাংসদ নিজের ইমেল আইডি, পাসওয়ার্ড অন্য কাউকে দিলেন? কেন বিদেশ থেকেও লগ ইন? এই প্রশ্ন জোরালো হওয়ার মাঝেই এবার সংসদে এই প্রশ্নের নিয়ম বদল হতে পারে বলে জোর জল্পনা।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest