আজ ফোকাস-এ

তিন মাস EMI না দেওয়ার পথ সুগম করল RBI, জেনে নিন কারা পাবেন এই সুবিধা?

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

নয়াদিল্লি: করোনার জেরে বেহাল ভারতীয় অর্থনীতি। অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার জন্য বৃহস্পতিবার একগুচ্ছ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন নির্মলা সীতারামন। শুক্রবার রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস তাঁর দিক থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করলেন, যেগুলি ইতিমধ্যেই বাহবা কুড়িয়েছে মোদী ও সীতারামনের।

আরও পড়ুন: করোনা আপডেট: দেশে আক্রান্ত বেড়ে ৭২৪, নতুন আক্রান্ত ৮৮, মৃত বেড়ে ১৭

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক শুক্রবার জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পরিস্থিতিতে দেশে যে অভূতপূর্ব অবস্থা তৈরি হয়েছে, সেই পরিস্থিতিতে তারা ইএমআই (EMI) পেমেন্ট নেওয়া তিন মাস স্থগিত রাখতে পারে।এ ব্যাপারে সাধারণ মানুষের বেশ কিছু প্রশ্ন ও কৌতূহল তৈরি হয়েছে। সেই সব প্রশ্ন এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের জবাব এই রকম—

প্রশ্ন: মার্চ মাস শেষ হতে চলেছে। শিগগির আমাকে ইএমআই দিতে হবে। সেটা কি এপ্রিলে আমার অ্যাকাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হবে না?

উত্তর: রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সমস্ত বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক, এনবিএফসি এবং গ্রামীণ ব্যাঙ্ককে শুধু অনুমতি দিয়েছে যে তারা ইএমআই পেমেন্ট নেওয়া তিন মাস স্থগিত রাখতে পারে। এখন যতক্ষণ পর্যন্ত আপনার ব্যাঙ্ক এই মর্মে কোনও সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ততক্ষণ আপনি এই সুবিধা পাবেন না।

প্রশ্ন: আমি কী করে জানব যে আমার থেকে ইএমআই নেওয়া আপাতত স্থগিত রেখেছে ব্যাঙ্ক?

উত্তর: রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এ ব্যাপারে এখনও গাইডলাইন তথা নির্দেশিকা ইস্যু করেনি। তা করলেই এ বিষয়ে আরও স্বচ্ছতা আসবে।

আরও পড়ুন: চিন, ইটালিকেও ছাপিয়ে গেল আমেরিকা! আক্রান্ত বেড়ে ৮৫ হাজার, মৃত ১৩০০

প্রশ্ন: ব্যাঙ্ক কীভাবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এই নির্দেশ বলবৎ করবে?

উত্তর: সব ব্যাঙ্ককেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এই পরামর্শ নিয়ে আলোচনা করতে হবে। এবং প্রতিটি ব্যাঙ্কে তাদের বোর্ডের মিটিং ডেকে এ ব্যাপারে প্রস্তাব অনুমোদন করাতে হবে। সেই অনুমোদনের পরই তারা গ্রাহকদের জানাতে পারবে যে তারা কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ গ্রাহকদের কাছে কতটা সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

প্রশ্ন: ব্যাঙ্ক যদি আমার থেকে ইএমআই নেওয়া বন্ধ রাখে, তা হলে কি আমার ক্রেডিট স্কোর কমে যাবে?

উত্তর: না, আপনার ক্রেডিট স্কোর কমবে না। এ ব্যাপারে রিজার্ভ ব্যাঙ্কও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে ব্যাঙ্কগুলিকে।

প্রশ্ন: কোন কোন ব্যাঙ্ক তার গ্রাহকদের এই সুবিধা দিতে পারে?

উত্তর: সব বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক, গ্রামীণ ব্যাঙ্ক, কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক, নন ব্যাঙ্কিং ফাইনান্সিয়াল কোম্পানিকে মোরাটোরিয়াম ঘোষণার অনুমতি দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

প্রশ্ন: আমার ইএমআই কি ছাড় দেওয়া হল, নাকি পিছিয়ে দেওয়া হল?

উত্তর: না, ছাড় দেওয়া হয়নি। পিছিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। অর্থাৎ পেমেন্ট শিডিউল পিছিয়ে যাবে।

আরও পড়ুন: দেশবাসীকে ঘরে আটকে রাখতে রামেই ভরসা কেন্দ্রের! আগামীকাল থেকে দূরদর্শনে ফিরছে ‘রামায়ণ’

প্রশ্ন: ইএমআই স্থগিত রাখা মানে কি সুদ ও আসল দুটোই নেওয়া হবে না?

উত্তর: হ্যাঁ। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের পরামর্শ মেনে আপনার ব্যাঙ্ক যদি আপনার থেকে তিন মাস ইএমআই না নেয়, তা হলে এই তিন মাস সুদ ও আসলের টাকা ফেরত দিতে হবে না। ১ মার্চ, ২০২০ থেকে বকেয়া ঋণের উপরেই তা প্রযোজ্য হবে।

প্রশ্ন: এই স্থগিতাদেশের আওতায় কী কী ধরনের ঋণ থাকবে?

উত্তর: রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নীতিতে টার্ম লোনের সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা রয়েছে। গাড়ি, বাড়ি, শিক্ষা সহ যে কোনও ধরনের ঋণ যা শোধ দেওয়ার সুনির্দিষ্ট মেয়াদ রয়েছে তা এর মধ্যে পড়বে। এমনকি ফ্রিজ, টিভি, মোবাইল কেনার জন্য যে ইএমআই দেওয়া হয় তাও এর মধ্যেই পড়ে।

প্রশ্ন: মোরাটোরিয়ামের আওতায় কি ক্রেডিট কার্ড পেমেন্টও পড়বে?

উত্তর: যেহেতু ক্রেডিট কার্ডের ঋণের উপর চক্রবৃদ্ধি সুদ ধার্য হয় এবং তা টার্ম লোন নয় তথা সুনির্দিষ্ট মেয়াদ নেই তাই তা এর আওতায় পড়বে না।

আরও পড়ুন: মকুব হবে ৩ মাসের EMI! করোনা-মোকাবিলায় বড় ঘোষণা রিজার্ভ ব্যাঙ্কের

প্রশ্ন: আমি একটি কারখানা শুরু করতে প্রোজেক্ট লোন নিয়েছি। আমিও কি ইএমআই নাও দিতে পারি?

উত্তর: সব রকমের সুনির্দিষ্ট মেয়াদের ঋণের ইএমআই-এর উপরেই মোরাটোরিয়ামের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ব্যাঙ্ক যদি মনে করে আপনার এখনই ইএমআই দেওয়ার ক্ষমতা নেই, তা হলে তা পিছিয়ে দিতে পারে।

প্রশ্ন: ব্যবসার জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কী ঘোষণা করেছে?

উত্তর: মূলধন খাতে নেওয়া সমস্ত ঋণের উপর সুদ নেওয়া আপাতত পিছিয়ে দিতে বলেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। ১ মার্চ, ২০২০ থেকে বকেয়া সুদ এ ক্ষেত্রে বিবেচিত ও প্রযোজ্য হবে। যে কদিনের জন্য সুদ নেওয়া পিছিয়ে দেওয়া হবে, সেই কদিনের সুদ অবশ্যই পরে মেটাতে হবে ব্যবসায়ীদের।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest