ফ্যাশনের কথা বলতে গেলেই আমাদের প্রথমেই ভাবতে হবে গরমের দেশ হিসেবে কী ধরনের পোশাক-আশাক আমাদের বেছে নেওয়া উচিত। চোখ ঝলসানো গ্রীষ্মের সকাল বা দুপুরে দেখতে স্নিগ্ধ লাগবে এবং কুল ফিলিংস-এর জন্য ফ্লোরাল প্রিন্টের তুলনা হয় না। গরমের জন্য একেবারে আদর্শ। তাই হয়তো ফ্লোরাল প্রিন্টের ফ্যাশন বারবার ফিরে আসে।

গরমের পোশাক বাছতে গেলে ফ্লোরাল প্রিন্টের পরিধান ওয়াড্রোবে অবশ্যই স্থান পাবে। গ্রীষ্মের কাঠফাটা রোদ্দুরে বিভিন্ন স্নিগ্ধ রঙে ঠাসা নানা ফুলের বাহারে সেজে ওঠার জন্য এই প্রিন্ট আদর্শ। নিমেষে যেন মনকে তরতাজা করে তোলে।

তবে ফ্লোরাল প্রিন্টস বাছার জন্য গাইডেন্স-এর প্রয়োজন হয়। এই প্রিন্টস-এর সঙ্গে মানানসই পোশাক না পরলে দেখতে বিসদৃশ লাগে। ফলে লুক-টাও আশানুরূপ হয় না। সুতরাং এই প্রসঙ্গে কিছু টিপস দেওয়া হল।

বোল্ড এবং বিউটিফুল

সকলের ওয়ার্ডরোবেই একটি কিংবা একাধিক ফ্লোরাল প্রিন্টের পোশাক থাকতেই পারে। পরতে পরতে সেগুলি একঘেয়ে হয়ে উঠলে চিন্তা নেই, নিয়ে আসুন আকর্ষণীয় রঙের বড়ো প্রিন্টের পোশাক, সঙ্গে মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করুন। ছোটো ছোটো প্রিন্ট এখন আউটডেটেড হয়ে উঠছে। বোল্ড প্রিন্টের পোশাকে নিজের আকর্ষণকে বাড়িয়ে নিন।

ফ্লোরাল জুতো ব্যবহার করুন

ফ্লোরাল জুতোর ফ্যাশন এখন, সুতরাং স্মার্ট মহিলাদের শু-ক্যাবিনেটে এই জুতো অবশ্যই রাখা উচিত। এই প্যাটার্ন যদি আপনার পছন্দের হয় তাহলে আপনি থ্রিডি ফ্লোরাল প্যাটার্ন-ও বাছতে পারেন। ফ্লোরাল জুতোর সঙ্গে ফ্লোরাল প্রিন্টেরই পোশাক পরুন– তাতে ভালো লাগবে দেখতে। এই ধরনের বোল্ড ফ্যাশনের যুগ চলছে এখন।

ফ্লোরাল ফর্মাল টি-শার্ট

স্টাইলিশ-লুকের জন্য ফ্লোরাল প্রিন্টেড টি-শার্ট-ও ভালো বিকল্প। ফ্লোরাল টি-শার্টের সঙ্গে সলিড কালারের ট্রাউজার দারুণ ম্যাচ করবে অথবা বাছতে পারেন পছন্দের ডেনিম। সাধারণত ফ্লোরাল টি-শার্ট-কে আমরা ফর্মাল পোশাক বলে ভাবি না। কিন্তু যদি এর সঙ্গে সলিড কালারের সামার ব্লেজার, ফর্মাল ট্রাউজার এবং বোল্ড শুজ পরা যায় তাহলে আকর্ষণীয় ফর্মাল লুক পাওয়া যাবে।

স্টাইল স্টেটমেন্ট হিসেবে ম্যাক্সি ড্রেসের তুলনা হয় না। শারীরিক গঠন যাই হোক না কেন এই ড্রেস সকলকেই মানায়। যেখানে পুরোপুরি ফর্মাল হওয়ার দরকার পড়ে না সেখানে এই ড্রেস খুব ভালোই মানিয়ে যায়, তাছাড়া ক্যাজুয়াল হিসেবে যে-কোনও সময়ই ম্যাক্সি ড্রেস পরা চলে। রবিবারের ব্রাঞ্চ পার্টি অথবা ক্যাজুয়াল দিনে মুভি দেখতে যাওয়া – পরার জন্য বাছুন ম্যাক্সি ড্রেস। সকলের দৃষ্টি আপনার উপরেই থাকবে।

আরও পড়ুন: গলায় টেলিফোনের তার, হাত জুড়ে দাঁতের পাটি! আজব গয়নায় মজেছে নেটনাগরিকরা

ম্যাচিং এবং মিক্সিং-এর উপর নজর রাখুন

যদি ফ্লোরাল প্রিন্টস-এর উপর খুব বেশি আস্থা রাখতে না পারেন তাহলে আলাদা আলাদা ফ্লোরাল প্রিন্ট-কে একে অপরের সঙ্গে মিশিয়ে প্রয়োগ করুন। আকর্ষণ বাড়াবার জন্য মার্কেটে যেটা চলছে না সেরকম কিছু প্রিন্ট বেছে ‘ফ্যাশনে ইন’ প্রিন্টের সঙ্গে মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে নিন। এই ফ্যাশন আপনাকে সম্পূর্ণ আলাদা স্টাইল দেবে। ছোটো প্রিন্ট-এর টপ পরলে সলিড কালারের প্যান্ট পরা উচিত।

ফ্লোরাল পালাজো প্যান্টস আকর্ষণ বাড়াবে

ফ্লোরাল পালাজো প্যান্টস-এর ফ্যাশন এখন খুব চলছে। গরমের মরশুমের জন্য এই প্যান্ট যেমন আরামদায়ক তেমনি কুল। আগে এগুলি সলিড কালারের চললেও, নতুন ফ্লোরাল প্রিন্টের ফ্যাশন এগুলিকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে। এই ধরনের প্যান্টের সঙ্গে সলিড কালারের টপ আপনাকে দেবে সেক্সি লুক।

পছন্দমতো ফ্লোরাল প্যান্ট বাছুন

কমপ্লিট লুকের জন্য ঠিকমতো রং এবং প্যাটার্ন যদি বেছে নেওয়া হয় সেক্ষেত্রে ফ্লোরাল প্যান্ট খুবই অ্যাট্রাক্টিভ লাগবে সন্দেহ নেই। হালকা রঙের ম্যাট ফিনিশ ফ্লোরাল প্যান্টের সঙ্গে লম্বা টপ খুব ভালো মানাবে। এর সঙ্গে পিপ-টো হিলস্ অথবা সফট মেটালিক কালারের জুতো খুব মানানসই হবে। প্যান্টের সৌন্দর্য এতে বাড়বে। লুক কমপ্লিট করার জন্য ড্রেসের সঙ্গে ম্যাচ করে ফ্লোরাল প্রিন্টের হেয়ার ব্যান্ড লাগাতে পারেন কারণ হেয়ার অ্যাক্সেসরিজ-এর চল বা ফ্যাশন কোনও সময়ই আউটডেটেড হয় না। অনেকে এর সঙ্গে স্কার্ফও ব্যবহার করতে পারেন যা সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে।

আরও পড়ুন: এই গরমে আপনার ফ্যাশনে থাক নজরকাড়া এথনিক লুক…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *