‘গোলি মারো’ স্লোগান দেওয়ায় ধৃত ৩, ‘এটা বাংলা, দিল্লি নয়’-বিজেপিকে হুঁশিয়ারি মমতার

কলকাতা: অমিত শাহের সভামুখী বিজেপির মিছিল থেকে যে ‘গোলি মারো’ স্লোগান উঠেছিল, সেই ঘটনায় জড়িত তিন জন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করল পুলিশ। রবিবার গভীর রাতে তাঁদের গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের নাম সুরেন্দ্রকুমার তিওয়ারি, ধ্রুব বসু এবং পঙ্কজ প্রসাদ। তাঁর তিন জনেই বিজেপির আইনজীবী সেলের সদস্য। পুলিশ জানিয়েছে, বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে দেখানো ফুটেজ এবং সিসিটিভি ফুটেজ মিলিয়ে তাঁদের চিহ্নিত করা হয়েছে।

রবিবার অমিত শাহের সভায় ‘গোলি মারো’ স্লোগান ঘিরে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। তার পরই নবান্ন থেকে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারের নির্দেশ দেওয়া হয়। রবিবার রাতেই এই ঘটনায় মামলা দায়ের করে নিউ মার্কেট থানা। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩-এ (দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে বিভেদ তৈরিতে উস্কানি দেওয়া), ৫০৫ (কোনও সম্প্রদায়কে হুমকি দেওয়া), ৫০ (কোনও ব্যক্তিকে হুমকি দেওয়া) এবং ৩৪ (সমবেত ভাবে অপরাধ করা), এই চারটি ধারায় তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।নবান্নের নির্দেশে নিউ মার্কেট থানা মামলা দায়ের করার পরই অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে তাঁদের তল্লাশি শুরু করেছিল পুলিশ। গভীর রাতে ওই তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়।

সোমবার ‘গোলি মারো’ স্লোগান বিতর্কে বিজেপিকে কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নেতাজি ইনডোরের দলীয় কর্মসূচি থেকে তাঁর হুঁশিয়ারি, “এটা দিল্লি নয়, এটা বাংলা। গুলি মারার স্লোগান দিলে শান্তি পেতে হবে।” তৃণমূল সুপ্রিমোর কথায়, “গোলি মারো-স্লোগান প্ররোচনামূলক।” এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, “রবিবার কলকাতার রাস্তায় যারা এই স্লোগান দিয়েছে, তাদের কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। বাকিদেরও করা হবে।”

প্রসঙ্গত, সিএএ নিয়ে প্রচার করতে রবিবারই শহরে এসেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।  এদিনই কলকাতার শহিদ মিনারে সভা করেন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই সকাল থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের বিজেপি কর্মীরা সভাস্থলে জমায়েত শুরু করে। বেলা গড়াতেই একে একে সমস্ত মিছিল গিয়ে মিশে যায় শাহর সভাস্থলে। অভিযোগ, বিজেপি কর্মীরা সভায় যাওয়ার পথেই কলকাতার রাজপথ মুখরিত হয় ওঠে বিতর্কিত গোলি মারো স্লোগানে। এমনকী পুলিশের সামনেই এই বিতর্কিত স্লোগান দিতে দিতে শহিদ মিনারের সভাস্থলে ঢুকছিলেন গেরুয়া শিবিরের নেতা-কর্মীরা। এই ছবি প্রকাশ্যে আসতেই সমালোচনার ঝড় উঠতে শুরু করে রাজনৈতিক মহলে। প্রশ্ন ওঠে পুলিশের ভূমিকা নিয়েও।

আরও পড়ুন: এবার ‘গোলি মারো’ স্লোগান কলকাতার বিজেপি কর্মীদের মুখে, উত্তেজনা রাজপথে

কর্মসূচির মঞ্চ থেকে দিল্লিতে এই স্লোগান দেওয়ায় কেন্দ্র সরকারের ভূমিকাকে তুলোধনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। “দিল্লিতে যারা উসকানিমূলক স্লোগান দিয়েছে, তারা শাস্তি পায়নি। কিন্তু কলকাতার রাস্তায় যারা এই স্লোগান দিয়েছে, তারা কড়া শাস্তি পাবেন”, বলে আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  তৃণমূল নেত্রীর কথায়, “ওরা কোথায় থাকে, কোথা থেকে এসেছে তা আমি জানি। দিল্লির সরকারের মতো আমরা চুপ করে থাকব না।” স্লোগান প্রসঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, “গদ্দার কারা, এটা কে ঠিক করবে? কাকে গুলি মারা হবে? জনগণ ঠিক করবে কারা গদ্দার।”