করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত থাকবে। তাই আমাদের হাতের কাছে এমন কিছু জিনিস সব সময় রাখা উচিত যেগুলি বাইরে যেতে অথবা ঘরে থাকাকালীন সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করতে পারে। তবে শুধু যে এই অতিমারির কাল কাটলে সেগুলি অকেজো হয়ে যাবে তা নয়, এগুলির প্রয়োজনীয়তা কিন্তু জীবনভর রয়ে যাবে।

১। পি সেফ টয়লেট সিট স্যানিটাইজার স্প্রে – সুন্দর গন্ধযুক্ত, ট্র্যাভেল ফ্রেন্ডলি, বাড়ির বাইরে কোনো জায়গায় টয়লেট ব্যবহারের আগে অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত এটি।

২। ইউরেকা ফোবসের অ্যাকুয়াগার্ড পার্সোনাল পিউরিফায়ার বোতল – যে কোনো জায়গায় যে কোনো জল জীবাণু মুক্ত করে পান করা যাবে।

৩। মিলটন থার্মোস্টিল ফ্লিপ লিড ফ্লাস্ক – তরল গরম ও ঠান্ডা থাকবে ২৪ ঘণ্টা। এখন তো মাঝেমধ্যেই জল গরম করার দরকার, তাই বার বার না করে একবারে ১ লিটার জল গরম করে রেখে দেওয়া যাবে।

৪। প্রেস্টিজ ক্লিন হোম ওজনাইজার – ফল, আনাজ, মাছ, মাংস, চাল,ডাল ইত্যাদি রাসায়নিকমুক্ত করা যায়।

৫। ওজনাইজার ফ্রুট অ্যান্ড ভেজটেবিল ক্লিনার – এয়ার পিউরিফায়ার মেশিন, পেস্টিসাইড টক্সিন রিমুভার, ওয়াটার পিউরিফায়ার, ক্লথ ওয়াশিং, স্কিন কেয়ারিং মেশিন হিসাবে কাজ করে। পোর্টেবল, ইকোফ্রেন্ডলি।

৬। মিনি এলইডি প্রোজেক্টর, হাই রেজলিউশন। হাতের তালুর মাপের। যে কোনো জায়গায় বহন ও ব্যবহার করা যায়। এখন ঘরে বসে মন খারাপ হচ্ছে বেশি। সিনেমা হল বন্ধ। তাই নিজের ঘরকেই সিনেমা হল বানাতে এটি খুবই কাজের।

৭। ইলেকট্রনিক কোস্টার। কাজ করতে বসে কাপের পানীয়কে দীর্ঘক্ষণ গরম রাখতে হলে এটি খুবই ভালো উপায়। কার্টুন আঁকা রঙিন ম্যাট। ইউএসবি পোর্ট দেওয়া।

৮। অটো শাট অন/অফ কফি মগ ওয়ার্মার। অফিস বা বাড়িতে কাজের টেবিলে ব্যবহার করা যাবে। গরম পানীয় হাতের কাছেই সব সময় পাওয়া যাবে।

৯। ওয়াটারপ্রুফ সিলড ট্র্যান্সপ্যারেন্ট মোবাইল ব্যাগ – বর্ষায় জলে সব ধরনের ফোনের জন্যই উপযুক্ত। তা ছাড়া এর ভেতর ফোন থাকলে এটি স্যানিটাইজ করলেই হল। ফোন স্যানিটাইজ করার আর কী দরকার।

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *