BREAKING: মাদক কাণ্ডে দিনভর জেরার পর গ্রেফতার রিয়ার ভাই শৌভিক-সহ দুই

মাদকচক্রের সঙ্গে জড়িত থাকবার মামলায় গ্রেফতার রিয়া চক্রবর্তীর ভাই শৌভিক চক্রবর্তী।  শৌভিকের পাশাপাশি এদিন এনসিবির হাতে গ্রেফতার হলেন সুশান্তের হাউজ ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডাও। নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর ডেপুটি ডিরেক্টর কেপিএস মালহোত্রা সংবাদমাধ্যমকে জানালেন, রিয়া চক্রবর্তীকে এখনও সমন পাঠানো হয়নি। তবে শৌভিক ও মিরান্ডার পরিবারকে তাদের গ্রেফতারির ব্যাপারে সূচনা দেওয়া হয়েছে। আগামিকাল দুজনকে এসপ্লানেড আদালতে পেশ করা হবে।

সুশান্ত মামলায় শুক্রবার সকাল থেকেই সক্রিয় ছিল এনসিবি। এদিন রিয়া চক্রবর্তী এবং স্যামুয়েল মিরান্ডার (Samual Miranda) বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালান এনসিবির আধিকারিকরা।  এরপরই সৌভিক ও স্যামুয়েলকে ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এর মধ্যেই মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে কেইজান ইব্রাহিম নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে এনসিবি। তারপরই সৌভিক ও স্যামুয়েলকে গ্রেপ্তারির কথা জানানো হয়।

আরও পড়ুন: মুম্বইকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা! কঙ্গনার বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন সেলেবরা…

মাদক কাণ্ডে শৌভিক এবং মিরান্ডা ছাড়াও  এখনও পর্যন্ত আরও দু’জনকে গ্রেফতার করেছে এনসিবি। জেরা করা হয়েছে আরও বেশ কয়েক জনকে। ধৃতদের মধ্যে রয়েছেন জইদ ভিলাত্রা এবং আব্দুল বসিত পরিহার। বসিতের সঙ্গে শৌভিকের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে বলে এনসিবি সূত্রে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়ে নিজের মাদকযোগের অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছে শৌভিক। শুধু তাই নয় জানা যাচ্ছে জেরায় রিয়া চক্রবর্তীর নামও নিয়েছে সে। দিদির কথাতেই নাকি ড্রাগ আদান-প্রদান করত সে, আধিকারিকদের এ কথাই জানিয়েছে শৌভিক। অন্যদিকে স্যামুয়েল মিরান্ডাও স্বীকার করে নিয়েছে ভাই শৌভিককে ড্রাগ আনার কথা বলতেন রিয়া। এবং শৌভিকের নির্দেশে ড্রাগ আনতেন তিনি।

আরও পড়ুন: মাদক চক্রে যোগ, গ্রেফতার কন্নড় অভিনেত্রী রাগিনী দ্বিবেদী